ভূমি অফিস অনলাইনে নামজারি করতে গড়িমশি করে কিন্তু নাগরিকদের অবশ্যই অনলাইনে মিউটেশন বা খারিজ করার অভ্যাস গড়াতে হবে – অনলাইনে জমির খারিজ করার উপায় ২০২৩

অনলাইন নামজারির আবেদনে খতিয়ান অংশে কাকে বলতে কী বুঝায়?–নামজারি সময়ে বা দলিলে রেজিস্ট্রেশনের সময় কোন নির্দিষ্ট দাগে জমি চিহ্নিত করতে না পারলে খতিয়ানের সকল বা কয়েকটি দাগ নং লিখে এবং তার বিপরীতে পরিমান লিখে মোট জমির বিপরীতে কাতে উল্লেখ করে জমির পরিমান দেয়। আবার একটি দাগে মোট জমির পরিমান থেকে কাতে লিখে ঐ দাগের আংশিক বোঝায় । দখল হয়তো একটি দাগে বা পাশাপাশি একাধিক দাগে দেয় বা একটি দাগের একটি অংশে দেয়্ এতে সমস্যা হয়। কাজেই জমি রেজিস্ট্রি করে নেবার সময় সতর্ক থাকতে হয়।

অনলাইন নামজারি হওয়ার পরে পুনরায় আমি আমার ডকুমেন্টসগুলা কিভাবে পেতে পারি? এক্ষেত্রে অনুগ্রহ করে জানাবেন আপনি নামজারির আবেদন করার পরে আপনার ডকুমেন্টসগুলা ভূমি অফিসে জমা দিয়ে থাকলে সেখান থেকে সংগ্রহ করুন। একটি নামজারী আবেদন করা হলে সেটি কত কার্যদিবসের মধ্যে নিস্পন্ন হবে অথবা, ভুমি সহকারী কর্মকর্তা কত দিনের মধ্যে রিপোর্ট দিবেন সেই সময়সীমা কি নির্ধারিত আছে? নামজারির কার্যক্রম সম্পন্ন হতে ২৮ কর্ম দিবস সময় প্রয়োজন হয়।

আবেদন না মঞ্জুরের কারণ কি ভূমি অফিস জানাতে বাধ্য? হ্যাঁ ।নামজারি আবেদন চূড়ান্তভাবে নামঞ্জুর করার পূর্বে সেবা গ্রহীতাকে তথ্য/কাগজপত্রের ঘাটতির ব্যাপারে অবগত করে নোটিশ দেওয়ার নির্দেশনা দিয়ে আজ এক পরিপত্র জারি করেছে ভূমি মন্ত্রণালয়।নাগরিকের ভোগান্তি লাঘবে এবং ভূমি অফিসের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে “ই-নামজারি আবেদন বাবদ ফি জমা প্রদানের পর আদেশ ব্যতীত নামজারির আবেদন না-মঞ্জুর প্রসঙ্গে” শীর্ষক পরিপত্রের মাধ্যমে আজ এই নির্দেশনা প্রদান করে ভূমি মন্ত্রণালয়। এর ফলে ভূমিসেবা গ্রহীতা নামজারি আবেদন না-মঞ্জুর হয়ে যাওয়ার পূর্বে একবার সুযোগ পাবেন ঘাটতি কাগজপত্র জমা দেওয়ার।ভূমি সচিব মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান পিএএ স্বাক্ষরিত পরিপত্রে জানানো হয়, ভূমি মন্ত্রণালয়ের ০২ নভেম্বর ২০২১ তারিখের ৫৬০ নম্বর পরিপত্রে ই-নামজারির আবেদনের সময় আবশ্যিকভাবে প্রথমেই কোর্ট ফি বাবদ ২০/- (বিশ) টাকা এবং নোটিশ জারি ফি বাবদ ৫০/- (পঞ্চাশ) টাকা জমা প্রদান করার নির্দেশনা রয়েছে। উক্ত টাকা পরিশোধ করার পর আবেদনকারীর আবেদন সহকারী কমিশনার (ভূমি)র আইডিতে তালিকাভুক্ত হয়। সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্তৃক অনেক সময় ১ম আদেশের পূর্বেই অনেক আবেদন না মঞ্জুর করা হয়। সেক্ষেত্রে কি কারণে আবেদন না মঞ্জুর হয়েছে নাগরিক জানতে পারেন না। এটি ভূমি অফিসের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহির অন্তরায়।

পরিপত্রে আরও জানানো হয়, এক্ষেত্রে নাগরিকের ভোগান্তি লাঘবে এবং ভূমি অফিসের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণের ১ম আদেশের পূর্বে নামজারি বাতিল করা যাবে না। আবেদনে কোন তথ্য অথবা কাগজপত্রের ঘাটতি থাকলে ১ম আদেশে তা উল্লেখ করে তথ্য/কাগজপত্র দাখিলের নির্দিষ্ট সময়সীমা প্রদান করতে হবে। আবেদনকারী কর্তৃক নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তথ্য বা কাগজপত্র দাখিল করতে ব্যর্থ হলে বা অন্য কোন কারণে না-মঞ্জুর হলে ২য় আদেশে সুনির্দিষ্টভাবে কারণ উল্লেখপূর্বক না-মঞ্জুর করার নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

জমি খারিজের জন্য কত টাকা দিতে হয়? জমি নামজারি ও জমা-খারিজ করতে সর্বমোট ১১৭০ টাকা লাগে।

নামজারি খতিয়ান/পর্চা টি কি অনলাইনে পাওয়া যাবে? আপনার নামজারি খতিয়ান/পর্চা পাবার জন্য, https://land.gov.bd ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।অনলাইনে নামজারি হয়ে থাকলে সহকারি কমিশনার (ভূমি) তা মঞ্জুর করলে আপনি নামজারি খতিয়ান/পর্চা পাবেন।

Caption: source of information

অনলাইনে নামজারি আবেদন করার নিয়ম । যেভাবে আপনি অনলাইনে আবেদন করবেন

  1. mutation.land.gov.bd এই ওয়েবসাইটটি তে প্রবেশ করুন এবং আবেদন অপশনটি সঠিকভাবে তথ্য দিয়ে পূরন করে আবেদন করবেন।
  2. আবেদন জমা হয়ে গেলে আবেদন নম্বর সহ যে পেজ আসবে সেই পেজে আবেদন ও নোটিশ ফি একত্রে ৭০/-টাকা অন-লাইনে জমা করার জন্য মোবাইল ওয়ালেট কিংবা ইন্টারনেট ব্যাংকিং থেকে সুবিধাজনক একটি অপশনে ক্লিক করে অগ্রসর বাটন চেপে নির্দেশনা অনুসরণ করে আপনি নগদ, রকেট, বিকাশ, উপায়,ভিসা কার্ড, মাস্টার্ড কার্ড সহ অন্যান্য ইনস্ট্রুমেন্টস ব্যবহার করে পেমেন্ট করার সুযোগ পাবেন।
  3. পেমেট হবার পর আবেদন নম্বর সহ পেমেন্ট কনফার্মেশনের একটি মেসেজ আসবে।
  4. এই মেসেজের নীচে থাকা পেমেন্ট রিসিপ্ট বাটন চেপে টাকা জমার রিসিপ্ট পাবেন ও প্রিন্ট করে নিতে পারবেন, তাছাড়া মেসেজের নীজে থাকা আবেদন প্রিন্ট বাটন চেপে আবেদনটি প্রিন্ট করতে বা পিডিএফ কপি সংরক্ষণ করে নিতে পারবেন।

নামজারি আবেদনে ভুল তথ্য প্রদানে করণীয় / নামজারি আবেদনে ভুল হলে করণীয়?

সহকারি কমিশনার (ভূমি) এই আবেদনটি প্রক্রিয়া শুরু না করা পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন তথ্য সংশোধন করা যাবে। আবেদন সাবমিট করার পর পরই আবেদনকারি তাঁর মোবাইলে একটি OTP পান। তথ্য সংশোধন করতে চাইলে আবেদন সার্চ করলে OTP প্রদান করে টাইপ করে পুনরায় ফরমটি ওপেন করতে পারবেন। বিভাগ, জেলা, উপজেলা ছাড়া সব কিছু সংশোধন করতে পারবেন। প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেলে আবেদনকারি আর সংশোধনের সুযোগ পাবেন না, তবে আবেদনকারী শুনানির সময় সহকারি কমিশনার (ভূমি) মহোদয়ের নিকট তথ্য সংশোধনের আবেদন করতে পারবেন।

ই নামজারি করার নিয়ম ২০২৩ । ভূমির ই-নামজারি করার জন্য ব্যবহার নির্দেশিকা

2 thoughts on “অনলাইনে জমির খারিজ করার উপায় । জমি নামজারি বা খারিজের জন্য কত টাকা দিতে হয়?

  • 17/05/2023 at 7:50 pm
    Permalink

    এসব ই নিঃসফল । অনলাইনে দরখাস্ত করলেন।সব কাগজপত্র ঠিকঠাক ই দিলেন। ইতিপূর্বে এ জমি চারবার খারিজ হয়েছে সে কাগজ ও দিলেন।ac land সাহেবের সাথে দেখা করলেন। সার্ভেয়ার ও পাঠালেন। সার্ভেয়ার সাহেব কোন রকম সারভে না করেই বলেদিলেন আপনার দখলটা দাগমত নাই সুতরাং দলিল সংশোধন করতে হবে। আবার গেলেন ac land এর নিকট অনুনয় করে বললেন এজমি ইতিপূর্বে চারবার খারিজ হয়েছে।যথাযথ কতৃপক্ষের অনুমোদন ক্রমে বিশ বৎসর পূর্বে পাঁচতলা স্থাপনা তৈরি হয়েছে। আমি স্থাপনা সহ জমিটি কিনেছি।অত্র হাউজিং এ সব প্লট ই বিল্ডিং হয়ে গেছে।সাহেব রেগে গিয়ে বললেন আমার কাছে আসছেন কেন ওদের কাছ থেকে খারিজ করিয়ে নিচ্ছেনা কেন । আমি আমার সারভেয়ারের রিপোর্টের বাহিরে যেতে পারব না।
    সুতরাং কেইছ খারিজ। অসহায় আপনি আমি।
    অনথক এত করম কর্ম জগ্য

    Reply
    • 18/05/2023 at 7:48 am
      Permalink

      ভূমি সেবা হটলাইন (১৬১২২) চালু করেছে ভূমি মন্ত্রণালয়। এই নম্বরে ভূমি সংক্রান্ত সেবা পাওয়া যাবে, পাশাপাশি অনিয়ম, দুর্নীতির অভিযোগ জানানো যাবে। প্রয়োজনে ঢাকা অফিসে যোগাযোগ করুন।

      Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *