রডের বর্তমান বাজার দর ২০২২ – রডের দাম প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে। বিশেষ করে গত এক বছরের ভেতরের দাম এতটাই বৃদ্ধি পেয়েছে যে জনগণের তা নাগালের বাইরে চলে গেছে। তারপরও যাদের বাড়ি করার সামর্থ্য আছে এবং অন্যান্য স্থাপনার ক্ষেত্রে বাজেট নির্ধারণ করা হয়ে গিয়েছে তারা বিভিন্ন চড়ামূল্যে রড কিনছেন। বর্তমান সময়ে KSRM রড কোম্পানির রডের প্রতি টনের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৯০,৫০০ টাকা। যা কেজি প্রতি ৯০৫০০ / ১০০০ = ৯০.৫ টাকা।

প্রতি কেজি রডের দাম কত? বাংলাদেশের বাজারে জ্বালানি তেলের দাম ৫১ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি তো পেয়েছেই সাথে রড সিমেন্ট অর্থাৎ নির্মাণ সামগ্রীর দামও অস্বাভাবিক হারে বেড়ে গেছে। এমএস রড বর্তমানে বাজারে ৯০-৯২ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এই তো কয়েক মাস আগেও এই রডের দাম ছিল ৮৫-৮৬ হাজার টাকার মত। যদি বর্তমান দাম হিসেবে কেজি প্রতি রডের দাম বের করি তাহলে দাঁড়ায় ৯২০০০/১০০০ = ৯২ টাকা (প্রতি কেজি)।

পাইকারী ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলা জানা গেছে যে, বিএসআরএম (BSRM) ব্র্যান্ডের রড বিক্রি হচ্ছে ৯২৩০০ টাকা দরে এবং কেএসআর রড বিক্রি হচ্ছে ৯০৫০০ টাকা দরে। একই সাথে একেএস রড প্রতি টন বিক্রি হচ্ছে ৯১৫০০ টাকা দরে। তাই বলাই যায়, ডলারের দাম যদি না কমে অথবা আমাদের দেশে যদি তেলের দাম না কমানো হয় তবে রড সিমেন্টের দাম সাহসাই কমছে না।

এম.এস রডের বর্তমান বাজার দর ২০২২ / টিসিবি বনাম চলতি বাজার দরে বেশ ফারাক রয়েছে। প্রতি টন রডের দাম ২০২২

বাংলাদেশে বর্তমানে রডের দাম কত? এমন প্রশ্নের মুখে পড়তে হয় যাদের তারা কিন্তু সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ দর দেখে নিতে পারেন।

বাজার দর ( 26th August, 2022)

Caption: Rod bd price in Bangladesh / টিসিবি’র ওয়েবসাইট থেকেই বাজার দর দেখে নিন 

আজ রডের দাম কত ? । চলুন কয়েকটি ব্র্যান্ডের রডের দাম জেনে নিই

  1. BSRM ROD PRICE । বিএসআরএম ব্র্যান্ডের রড বিক্রি হচ্ছে ৯২,৩০০ টাকা।
  2. KSRM ROD PRICE । কেএসআর রড বিক্রি হচ্ছে ৯০,৫০০ টাকা।
  3. AKS ROD PRICE । একেএস রড প্রতি টন বিক্রি হচ্ছে ৯১,৫০০ টাকা।

রডের দাম ভবিষ্যতে কমার সম্ভাবনা ঠিক কত টুকু?

রডের দাম কমবে – যদি রাশিয়া থেকে তেল আমদানি করা যায় অথবা দেশে তেলের দাম কমানো হয় তবে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য কমার সাথে সাথে রডের দামও কমে যাবে। তবে বাংলাদেশের ইতিহাস যা বলে তা হলো এ দেশে যে জিনিসের দাম একবার বেড়ে যায় তা আর কখনও কমে না। তবে বৈশ্বিক এ পরিস্থিতির পরিবর্তন হলে অবশ্যই রডের দাম কমবে। ধন্যবাদ