বাংলাদেশে জমির মালিকানা ৭ ভাবে পরিবর্তন বা হস্তান্তরিত হয়ে থাকে – জমির তথ্য ক্রমান্বয়ে অনলাইন করা হচ্ছে এবং কিছু তথ্য এখন অনলাইন হতেই সংগ্রহ করা যায়- জমির মালিকানা পরিবর্তনের নিয়ম ২০২৩

জমি ক্রয় করার কত দিন পর দলিল? উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার অফিসে না পেলে জেলা রেজিস্ট্রার অফিসে গিয়ে যোগাযোগ করুন। সহকারী ভূমি কমিশনারের মাধ্যমে রেজিস্ট্রি কার্য সম্পন্ন হওয়ার পরের দিন অর্থাৎ মাত্র একদিন পরই আপনি অবিকল দলিলের নকল পেতে পারেন। আগামী সাত (০৭) দিনের মধ্যেই আপনি মূল দলিল পেতে পারেন। গাজীপুর সাবরেজিস্ট্রি অফিস এখন একদিনেই নকল ও ৭ দিনে জমির মূল দলিল পাচ্ছেন জমি ক্রেতারা। শত বছরের পুরোনো দলিল হলেও মাত্র তিনদিনেই দেয়া হচ্ছে তল্লাশি দলিল। দেশের আর কোনো সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে এমন সেবার কাজের নজির নেই-সূত্র দেখুন। কোন কোন সাব-রেজিস্ট্রি অফিস হতে মূল দলিল পেতে ২-৩ বছর পর্যন্ত সময় লেগে যায়। তাই রেজিস্ট্রি কাজ শেষ হলেই একটি নকল এবং রশিদ সংগ্রহ করে রাখুন। বর্তমানে সরকার ডাকযোগে দলিল প্রেরণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

মিউটেশন করার নিয়ম কি? https://mutation.land.gov.bd এই ওয়েবসাইটটি তে প্রবেশ করুন এবং আবেদন অপশনটি সঠিকভাবে তথ্য দিয়ে পূরন করে আবেদন করবেন। আবেদন জমা হয়ে গেলে আবেদন নম্বর সহ যে পেজ আসবে সেই পেজে আবেদন ও নোটিশ ফি একত্রে ৭০/-টাকা অন-লাইনে জমা করার জন্য মোবাইল ওয়ালেট কিংবা ইন্টারনেট ব্যাংকিং থেকে সুবিধাজনক একটি অপশনে ক্লিক করে অগ্রসর বাটন চেপে নির্দেশনা অনুসরণ করে আপনি নগদ, রকেট, বিকাশ, উপায়,ভিসা কার্ড, মাস্টার্ড কার্ড সহ অন্যান্য ইনস্ট্রুমেন্টস ব্যবহার করে পেমেন্ট করার সুযোগ পাবেন। পেমেট হবার পর আবেদন নম্বর সহ পেমেন্ট কনফার্মেশনের একটি মেসেজ আসবে। এই মেসেজের নীচে থাকা পেমেন্ট রিসিপ্ট বাটন চেপে টাকা জমার রিসিপ্ট পাবেন ও প্রিন্ট করে নিতে পারবেন, তাছাড়া মেসেজের নীজে থাকা আবেদন প্রিন্ট বাটন চেপে আবেদনটি প্রিন্ট করতে বা পিডিএফ কপি সংরক্ষণ করে নিতে পারবেন।

নিজের নামে কোথায় কত দাগে সম্পত্তি রয়েছে কিভাবে অনলাইনে দেখার কোন উপায় আছে কি? নিজের নামে কত দাগে কোথায় সম্পত্তি আছে সেটি অনলাইনে দেখার কোন সুযোগ নেই । বিষয়টি সম্পর্কে জানতে হলে আপনাকে অবশ্যই আপনার উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিসে গিয়ে জানতে হবে। অনলাইনে ই পর্চা ওয়েবসাইটে গিয়েও নাম ভিত্তিক ও দাগ ভিত্তিক খতিয়ান দেখতে ও বের করতে পারবেন। লিংক ভিজিট করুন: https://www.eporcha.gov.bd

জমির মালিক চিহ্নিত করার উপায় । কিভাবে অনলাইনে নামজারি করতে হয়?

একটা জমি সাবরেজিস্টার অফিসে রেজিষ্ট্রেশন করে দলিল হয় তখন আর কোনো বড় প্রমাণ কি প্রয়োজন হয়? দলিল দিয়েই আপনি এখন নামজারি করতে পারবেন।

সার্ভে খতিয়ান: eporcha.gov.bd

জমির মালিকানা সূত্র ২০২৩ । কী কী উপায়ে জমির মালিকানা পাওয়া যায়?

  1. ক্রয় সূত্র: প্রকৃত ভূমি মালিকের নিকট থেকে জমি দলিলমূলে ক্রয় করা হলে।
  2. ওয়ারিস সূত্র: ভূমি মালিকের মৃত্যুর পর তাঁর জমিজমা উত্তরাধিকারীগণ প্রাপ্ত হলে।
  3. হেবা সূত্র: প্রকৃত ভূমি মালিক কর্তৃক কাউকে কোন জমি দান করা হলে।
  4. ডিক্রি সূত্র : বিজ্ঞ আদালতের রায় ডিক্রিমূলে কোন জমি প্রাপ্ত হলে ।
  5. নিলাম সূত্র : সরকারি পাওনা অনাদায়ে রুজুকৃত মামলায় বিজ্ঞ আদালতের আদেশে কোন দায়বদ্ধ জমি নিলামের মাধ্যমে বিক্রয় হলে।
  6. বন্দোবস্ত সূত্র: সরকারি খাসজমি দীর্ঘমেয়াদি লিজ (সাধারণ ক্ষেত্রে ৯৯ বৎসরের জন্য) নেয়া হলে।
  7. অধিগ্রহণ সূত্র: সরকার বা ব্যক্তি উদ্যোগে জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট কোন উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের লক্ষ্যে স্থাবর সম্পত্তি অধিগ্রহণ ও হুকুম দখল আইন অনুযায়ী সরকার কর্তৃক সরকারের সংশ্লিষ্ট সংস্থা বা প্রত্যাশীর অনুকূলে কোন জমি অধিগ্রহণ করা হলে।

বায়না করার কত দিন রেজিস্ট্রি করতে হয়?

জমির বায়নানামা সম্পাদনের তারিখ থেকে এক মাসের মধ্যে বায়নাটি রেজিস্ট্রি করতে হবে। আর শর্ত অনুযায়ী বায়নার চুক্তি অনুযায়ী রেজিস্ট্রি করার সব পদ্ধতি মেনে সাব-কবলা দলিলটি সম্পাদিত হলে সম্পাদনের পর থেকে তিন মাসের মধ্যে সাব-কবলা দলিলটি রেজিস্ট্রি করাতে হবে। দলিল সংক্রান্ত বিষয়ের জন্য উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার অফিসে গিয়ে যোগাযোগ করুন। উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার অফিসে না পেলে জেলা রেজিস্ট্রার অফিসে গিয়ে যোগাযোগ করুন। দলিল আইন মন্ত্রণালয়ের অধীনে, ভূমি মন্ত্রণালয়ের নয়। আপনাকে ভূমি রেজিস্ট্রেশান কিংবা প্রবাসী পাওয়ার অব এটর্নি টি সরাসরি আইনের অধীনে থেকে থাকে। অনুরোধ করছি সরাসরি বিজ্ঞ আদালতে দেওয়ানি আইনজীবীর সাথে যোগাযোগ করে তথ্যটি জানার চেষ্টা করবেন।

নামজারি করার নিয়ম ২০২৩ । নামজারি সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ ৪৩ টি জিজ্ঞাসা ও উত্তর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *