খেতাবপ্রাপ্ত, যুদ্ধাহত ও শহিদ বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ঈদ-উল-ফিতর বাবদ ২৭,৫৮,১৩,৩০০/- (সাতাশ কোটি আটান্ন লক্ষ তেরো হাজার তিনশত) আর্থিক মঞ্জুরি জ্ঞাপন করা হয়েছে- মুক্তিযোদ্ধা উৎসব ভাতা ২০২৩

মুক্তিযোদ্ধা ভাতা কি? – মুক্তিযোদ্ধা ভাতা বা ফ্রিডম ফাইটার স্টিপেন্ড আদালত (Freedom Fighter Stipend Adalat) হলো বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জন করেন তাদের জন্য সরকার দ্বারা প্রদান করা হওয়া একটি নিশ্চিত পেনশন বা বৃত্তির নাম। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময়কালে বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধা বা লিবারেশন ফাইটাররা স্বাধীনতা চাইতে লড়াই করেন এবং এদের সঙ্গে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে সমর্থন প্রদান করেন। স্বাধীনতা যুদ্ধের পর বাংলাদেশের সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের জীবন এবং স্বাস্থ্য সম্পর্কিত সুবিধাদির্ঘ সময় পর্যন্ত সহায়তা প্রদান করে এবং এর জন্য একটি পেনশন বা বৃত্তি প্রদান করে।

আদিষ্ট হয়ে চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটে ১২০০০১৮১১-বীর মুক্তিযোদ্ধাদের উৎসব ভাতা শিরোনামে ৩৭২১১০২-কল্যাণ অনুদান খাতে বরাদ্দকৃত ৪৫০,০০,০০,০০০/- (চারশত পঞ্চাশ কোটি) টাকা হতে যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা, শহিদ বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবার, মৃত যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবার, খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও মৃত খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উৎসব ভাতা (ঈদ-উল-ফিতর) বাবদ (২৬,৯৯,৯৩,৩০০+৫৮,২০,০০০) = ২৭,৫৮,১৩,৩০০/- (সাতাশ কোটি আটান্ন লক্ষ তেরো হাজার তিনশত) টাকা বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টর অনুকূলে ছাড়করণে নিম্নোক্ত বিভাজন ও শর্তানুসারে আর্থিক মঞ্জুরি জ্ঞাপন করা হয়েছে।

ছাড়কৃত (২৬,৯৯,৯৩,৩০০+৫৮,২০,০০০) = 27,58,১৩,৩০০/- (সাতাশ কোটি আটান্ন লক্ষ তেরো হাজার তিনশত) টাকা বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের, ব্যবস্থাপনা পরিচালক আয়ন-ব্যয়ন কর্মকর্তা হিসেবে যথাযথ বিলের মাধ্যমে চীফ একাউন্টস এন্ড ফিন্যান্স অফিসারের কার্যালয়, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় হতে উত্তোলনপূর্বক বিতরণের ব্যবস্থা নিশ্চিত করবেন।

মুক্তিযোদ্ধা ভাতা কত টাকা? / মূল মুক্তিযোদ্ধা ভাতা অনুসারেই উৎসবভাতা প্রাপ্ত হন।

যদি মূল উৎসব ভাতা ২৮ হাজার টাকা হয় তবে উৎসব ভাতাও ২৮০০০ টাকা হবে। মুসলমানগণ দুটি ঈদে দুটি বোনাস বা উৎসব ভাতা পান।

Caption: Source of information

মুক্তিযোদ্ধা উৎসব ভাতা ২০২৩ । অর্থ ব্যয়ে শর্ত আরোপ করা হয়েছে 

  • (ক) মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট কর্তৃক প্রণীত প্রবিধান ও প্রজ্ঞাপন অনুয়ায়ী উৎসব ভাতা পরিশোধ করতে হবে;
  • (খ) পরববর্তী প্রস্তাব প্রেরণের সময় হালনাগাদ ব্যাংক হিসাবসহ ছাড়কৃত টাকার ব্যয় বিবরণী প্রেরণ করতে হবে;
  • (গ) অব্যয়িত অর্থ (যদি থাকে) ৩০ জুন ২০২২ এর মধ্যে চালানের মাধ্যমে সরকারি কোষাগারে জমা দিয়ে অর্থ বিভাগকে অবহিত করতে হবে;
  • (ঘ) প্রকৃত প্রয়োজনের নিরিখে অনুমোদিত নির্দিষ্ট হারে উৎসব ভাতা পরিশোধ করতে হবে।

মুক্তিযোদ্ধারা সবাই কি একই হারে বোনাস পান?

না। – মূলভাতার সমপরিমাণ হারে উৎসব ভাতা পেয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধাগণ কারও মুল ভাতা ৩০০০০ টাকা তিনি উৎসব ভাতা হিসেবে ৩০ হাজার টাকা পাবেন। কারও ৯৩০০ টাকা তিনি উৎসব ভাতা হিসেবে ৯৩০০ টাকা হিসেবে দুটি ঈদে দুটি বোনাস বা উৎসব ভাতা পাবেন।

মুক্তিযোদ্ধা ভাতা ২০২৩ । বর্তমানে মুক্তিযোদ্ধা ভাতার পরিমাণ কত?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *