সরকারি, বেসরকারি বিভিন্ন সুবিধা পেতে টিন সার্টিফিকেট ও আয়কর রিটার্ন জমা দেয়া বাধ্যতামূলক ছিল। কিন্তু চলতি বছর বাংলাদেশ সরকার এই নীতিমালায় কিছু পরিবর্তন এনেছে। ফলে বেশ কিছু ক্ষেত্রে আমাদেরকে বাধ্যতামূলকভাবে আয়কর রিটার্ণ জমা দেয়ার প্রমাণ দেখাতে হবে। এর মাধ্যমে প্রকৃত পক্ষে সরকার জনগনকে বাধ্য করতে চাচ্ছে যাতে করে নির্দিষ্ট সেবাগুলো পেতে আয়কর রিটার্ণ জমা দেন। ট্যাক্স রিটার্ন দাখিল ২০২৩ । রিটার্ণের হালনাগাদ প্রাপ্তি স্বীকারপত্র ব্যাংকে জমা দিন

আমাদের মধ্যে অনেকেরই TIN Certificate থাকলেও অনেকেই নির্ধারিত সময়ে আয়কর রিটার্ণ জমা দেন না। আর এ জন্যই চলতি বছর (২০২২-২০২৩ অর্থবছরে) আয়কর রিটার্ন জমা দেয়ার ব্যাপারে বিশেষ জোর দেয়া হয়েছে। একই সাথে বাড়ানো হয়েছে রিটার্ন জমা দেয়ার বিষয়ে বাধ্যবাধকতার পরিধি। E Return । অনলাইনে রিটার্ন দাখিল করার নিয়ম ২০২৩

চলুন জেনে নিই কোন কোন সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রে আমাদেরকে আয়কর রিটার্ন জমা দিতে হবে। যেহেতু সেবা পেতে ঝামেলায় পড়তে হবে তাই আজই অনলাইনে রিটার্ণ দাখিল করুন।

৪৩ টি ক্ষেত্রে আয়কর রিটার্ন জমা দেয়ার প্রমাণ দিতে হবে।

চলতি বছর হতে আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়ার বাধ্যবাধকতা আরোপ করা হয়েছে যেসকল ক্ষেত্রে তা নিম্নে উল্লেখ করা হলো:

  • ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ৫,০০,০০০ টাকার বেশি ঋণ আবেদন করতে হলে
  • কোনো কোম্পানির পরিচালক বা উদ্যোক্তা পরিচালক হতে হলে
  • আমদানি-রপ্তানি ব্যবসার সনদ থাকলে বা নতুন সনদ নিতে হলে
  • সিটি বা পৌর এলাকায় ট্রেড লাইসেন্স থাকলে বা নতুন সনদ নিতে হলে
  • ক্রেডিট কার্ড থাকলে বা নতুন কার্ড নিতে চাইলে
  • ডাক্তার, আইনজীবী, চার্টার্ড অ্যাকাউন্টেন্ট, প্রকৌশলী, স্থপতি, সার্ভেয়ারের মত পেশাজীবীদের সংগঠনের সদস্য হয়ে থাকলে বা সদস্য হতে চাইলে
  • বিবাহ নিবন্ধকের লাইসেন্স পেতে হলে
  • কোনো বাণিজ্য সংগঠনের সদস্য হলে বা সদস্য হতে চাইলে
  • ড্রাগ লাইসেন্স থাকলে বা করাতে চাইলে
  • দেশের যে কোনো জায়গায় বাণিজ্যিক বা শিল্প কারখানায় গ্যাস লাইন এবং সিটি করপোরেশন এলাকায় বাসা বাড়ির গ্যাস সংযোগ নিতে এবং আগের সংযোগ বজায় রাখতে
  • নৌযানের সার্ভে সার্টিফিকেটের জন্য
  • ইটভাটার অনুমোদন নিতে
  • ইংরেজি মাধ্যমের স্কুলে বা জাতীয় কারিকুলামের ইংরেজি ভার্সনের স্কুলে সন্তান বা পোষ্য ভর্তি করাতে
  • সিটি করপোরেশন এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ নিতে
  • অস্ত্রের লাইসেন্স
  • আমদানির এলসি খুলতে
  • ডাকবিভাগে ৫ লাখ টাকার বেশি সঞ্চয়ী হিসাব খুলতে
  • যে কোনো ধরনের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের স্থিতি ১০ লাখ টাকার বেশি হলে
  • ৫ লাখ টাকার বেশি সঞ্চয়পত্র কিনতে
  • উপজেলা, পৌরসভা, জেলা পরিষদ, সিটি করপোরেশন এবং সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে
  • জমি বা বাসা ভাড়া দিলে, পরিবহন সেবার ব্যবসা করলে
  • এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা মাসে ১৬ হাজার টাকার বেশি পেলে
  • চার চাকার যে কোনা মোটরগাড়ি নিবন্ধন, ফিটনেস নবায়ন , মালিকানা হস্তান্তর করতে
  • অনলাইনে যে কোনো ধরনের পণ্য বা সেবা বিক্রি করলে
  • সোসাইটি রেজিস্ট্রেশন অ্যাক্টের অধীনে গঠিত কোনো ক্লাবের সদস্য হলে
  • পণ্য সরবরাহের ঠিকাদারি কাজে টেন্ডার জমা দিতে
  • আমদানি-রপ্তানির বিল অব এন্ট্রি জমা দিতে
  • ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী বা খুলনায় ভবন নির্মাণের নকশা অনুমোদনের জন্য
  • এছাড়া, স্বীকৃত প্রভিডেন্ট ফান্ড, অনুমোদিত গ্র্যাচুইটি ফান্ড, পেনশন ফান্ড, অনুমোদিত সুপারএন্যুয়েশন ফান্ড এবং শ্রমিক অংশগ্রহণ তহবিল ব্যতীত অন্যান্য ফান্ডের রিটার্ন দাখিল করতে হবে।

অন্যদিকে, কর না দিলে গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির মত প্রয়োজনীয় সেবা বন্ধ করার প্রস্তাব চলতি বাজেটে রেখেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। আয়কর রিটার্ণ দাখিলের প্রমাণ হিসেবে কি কি ডকুমেন্ট প্রদান করতে হবে তা নিয়ে আমরা দ্বিধা রয়েছে। চলুন জেনে নিই কি ডকুমেন্ট প্রদান করতে হবে।

নিম্মোক্ত ৩টি ডকুমেন্টের যেকোন একটি জমা দিলেই চলবে:

  • আয়কর রিটার্ন জমা দেয়ার রসিদ (এনবিআর কর্তৃক প্রাপ্তিস্বীকার পত্র)।
  • করদাতার নাম, টিন, কর দেয়ার বছর উল্লেখ করে এনবিআরের সনদ (এরূপ সনদ স্বয়ংক্রীয় পদ্ধতিতেও হতে পারে)।
  • কর উপ-কমিশনার কর্তৃক প্রদত্ত সনদ (সনদে করদাতার নাম, টিন, কর দেয়ার বছর উল্লেখ থাকতে হবে)।

টিনধারীদের অনলাইনে জিরো রিটার্ণ দাখিল করার পদ্ধতি । Online Zero Return Step by Step 2023-24

One thought on “অনলাইনে রিটার্ন দাখিল ২০২৩ । যে ৪৩ ধরনের সুবিধা পেতে রিটার্ন দাখিল বাধ্যতামূলক করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *