অনলাইন এবং ম্যানুয়াল পদ্ধতি এ দুটি নিয়মেই হোল্ডিং ট্যাক্স বা কর পরিশোধ করা যায় – Holding Tax Fixation 2024

হোল্ডিং নম্বর ও ট্যাক্স কি? হোল্ডিং ট্যাক্স দেওয়ার আগে অবশ্যই হোল্ডিং নাম্বার থাকাটা জরুরী কারণ হোল্ডিং নাম্বার এর উল্লেখ করে আমরা হোল্ডিং ট্যাক্স পরিশোধ করে থাকি। সাধারণত প্রত্যেক বাসা বাড়িতে একটি নাম্বার প্লেট দেওয়া থাকে। সেটি হতে পারে পৌরসভা অথবা সিটি কর্পোরেশন। প্রত্যেকটা বাসা বাড়িতেই নাম্বার প্লেটে একটা নাম্বার উল্লেখ করা থাকে। আর এটিই হচ্ছে হোল্ডিং নাম্বার। আপনি যখন ট্যাক্স দিতে যাবেন তখন অবশ্যই এই হোল্ডিং নাম্বারটি আপনাকে উল্লেখ করতে হবে। এটি হচ্ছে আপনার বাড়ির ট্যাক্স প্রদানের প্রমাণ। যাদের নিজের জায়গা বা জমি রয়েছে এবং সেই জমিতে বাসা-বাড়ি তৈরি করা হয়েছে। সেসব বাসা-বাড়ির জন্য প্রতি বছর সরকারকে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা ট্যাক্স প্রদান করতে হবে। রাজস্ব হিসেবে সরকারকে বাসা-বাড়ির পরিমাণ ও স্থান অনুযায়ী ট্যাক্স প্রদান করতে হয়। আর এটিই হচ্ছে হোল্ডিং ট্যাক্স (Holding tax)।

বাড়ি বা ফ্ল্যাটের আয়তন অনুসারে কি হোল্ডিং ট্যাক্স নির্ণয় করা হয়? ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন প্রতিটি ওয়ার্ডের জন্য হোল্ডিং ট্যাক্সের পৃথক পৃথক রেট চার্ট রয়েছে । নগরবাসীর সুবিধার্থে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ওয়েবসাইটে (www.dncc.gov.bd) রেট চার্টটি দেয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন আপনার এলাকার বাড়ি বা ফ্ল্যাটের হোল্ডিং ট্যাক্সের রেট কত। আপনার বাড়ি বা ফ্ল্যাটের আয়তনের সাথে সংশিষ্ট এলাকার রেট দিয়ে গুণ করুন। গুণ করার পর যে অংক দাঁড়াবে তা হলো ০১ মাসের মূল্যায়ন।

হোল্ডিং কর কত শতাংশ দিতে হয়? মাসিক মূল্যায়নকে ১০ মাস দিয়ে আবারো গুণ করুন। যদিও ১২ মাসে এক বছর, তথাপি ০২ মাসের মূল্যায়নের অংক বাদ দিয়ে বাৎসরিক মূল্যায়ন নিরূপণ করা হয়। সাধারণত বাড়ির সংস্কারের জন্য বাড়ির মালিক অর্থ ব্যয় করেন, বিধায় ০২ মাসের মূল্যায়ন বাদ দিয়ে ১০ মাসের মূল্যায়ন দিয়ে বাৎসরিক মূল্যায়ন নিরূপণ করা হয়। অনেকেই বাৎসরিক মূল্যায়নকে হোল্ডিং ট্যাক্স মনে করে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। মনে রাখা দরকার, বাৎসরিক মূল্যায়নের ১২% হারে বাৎসরিক হোল্ডিং কর নির্ধারণ করা হয়। সরকারি আইনে সর্বোচ্চ ৩০% হারে হোল্ডিং কর নির্ধারণ করার বিধান থাকলেও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন শুধুমাত্র ১২% হারে হোল্ডিং কর আরোপ করে থাকে । একটি উদাহরণ দিলে বিষয়টি আরো পরিস্কার হতে পারে।

নিজ ফ্ল্যাটে নিজে বসবাস করলে কি হোল্ডিং ট্যাক্স কম? আপনি যদি আপনার বাড়ি বা ফ্ল্যাটে নিজে বসবাস করেন, তাহলে আপনার বার্ষিক মূল্যায়ন আরো ৪০% হ্রাস হয়ে যাবে। আপনি জেনে খুশি হবেন, যদি আপনার গৃহ নির্মাণ ঋণ থাকে বা আপনি যদি ফ্ল্যাট লোন নিয়ে থাকেন তাহলে আপনার গৃহীত ঋণের বাৎসরিক সুদ বার্ষিক মূল্যায়ন থেকে সম্পূর্ণ বাদ যাবে। এর ফলে আপনার বার্ষিক হোল্ডিং ট্যাক্স অনেকাংশে কমে যাবে। আপনার ঋণের মেয়াদ যত বছর বলবৎ থাকবে, ঠিক তত বছর আপনি এ কর হ্রাসের সুবিধা পাবেন।

হোল্ডিং ট্যাক্স গণনা বা হিসাবের পদ্ধতি কি? শহর অঞ্চলের ক্ষেত্রে হোল্ডিং ট্যাক্স এর হিসাব যেভাবে হয়, গ্রাম অঞ্চলের ক্ষেত্রে হোল্ডিং ট্যাক্সের হিসাব সেভাবে হয় না। শহরাঞ্চলের ক্ষেত্রে হোল্ডিং ট্যাক্স সাধারণত ফুট আকারে হিসাব করা হয়। সাধারণত প্রতি বর্গফুটের জন্য ৬.৫০ টাকা হারে হোল্ডিং ট্যাক্স প্রদান করতে হয়। অন্যদিকে গ্রামাঞ্চলে হোল্ডিং ট্যাক্স এর হিসাব বার্ষিক মূল্যের ওপর পার্সেন্ট আকারে হিসাব করা হয়।

হোল্ডিং ট্যাক্স নির্ধারণ পদ্ধতি ২০২৪ । ইউনিয়ন পরিষদের হোল্ডিং ট্যাক্স নির্ধারণ পদ্ধতি দেখুন

ইউপি হোল্ডিং ট্যাক্স কিভাবে দিতে হয়? সরাসরি আপনার ইউনিয়ন পরিষদ অথবা পৌরসভার ট্যাক্স অফিসে গিয়ে, অন্যটি হচ্ছে অনলাইনে। আপনি যেকোনো এক উপায়ে আপনার হোল্ডিং ট্যাক্স পরিশোধ করতে পারবেন। হোল্ডিং ট্যাক্স পরিশোধের ক্ষেত্রে আপনাকে সরাসরি আপনার পৌরসভা অথবা ইউনিয়ন পরিষদের কর অফিসে গিয়ে আপনার হোল্ডিং ট্যাক্স পেমেন্ট সম্পর্কে তাদেরকে জানাতে হবে। এক্ষেত্রে তারা আপনাকে একটি ফর্ম প্রদান করবে। এই ফর্মটিতে আপনার তথ্যসমূহ পূরণ করে তাদের নির্দেশিত পন্থা অনুযায়ী আপনাকে টাকাটা পরিশোধ করে দিতে হবে। তাহলে আপনার হোল্ডিং ট্যাক্স পরিশোধ হয়ে যাবে।

হোল্ডিং ট্যাক্স নির্ধারণ করা হয়

Caption: City Corporation Holding Tax 2024

অনলাইনে হোল্ডিং ট্যাক্স দেওয়ার নিয়ম ২০২৪ । সিটিকর্পোরেশন হোল্ডিং ট্যাক্স কি অনলাইনেই পরিশোধ করা যায়?

  1. প্রথমে Sonali Bank ePayment Portal ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।
  2. সোনালী ব্যাংকের ট্যাক্স পেমেন্টের একটি অনলাইন ভিত্তিক পোর্টাল। এখানে সোনালী ব্যাংকের ট্রেজারি চালানোর মাধ্যমে আপনি ট্যাক্স পেমেন্ট করতে পারবেন।
  3. লিংকে ক্লিক করলে একটি ফর্ম চলে আসবে।
  4. ফর্ম-এ সঠিক তথ্য দিয়ে আপনাকে পূরণ করতে হবে।
  5. টিআইএন, নাম, এড্রেস, ট্যাক্স, জোন ট্যাক্স সার্কেল, অ্যাকাউন্ট, কোড পেমেন্ট, রাইট পেমেন্ট, আন্ডার সেকশন, ট্যাক্স ইয়ার, অ্যামাউন্ট এবং মোবাইল নাম্বার সঠিকভাবে প্রদান করে নেক্সট বাটনে ক্লিক করতে হবে।
  6. পেমেন্ট অপশন চলে আসবে।
  7. মোবাইল ব্যাংকিং যেমন বিকাশ, নগদ, ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমেও এই ট্যাক্স প্রদান করতে পারবেন।
  8. ট্যাক্স প্রদান করা হয়ে গেলে অবশ্যই ট্যাক্স প্রদানের রিসিপ্টটি ডাউনলোড করে নিবেন এবং প্রিন্ট করে নিবেন।

মুক্তিযোদ্ধা কি হোল্ডিং কর রেয়াত পায়?

মনে রাখবেন, রেজিস্টার্ড বন্ধকী দলিল ব্যতীত এ সুবিধা পাওয়া যাবে না। মুক্তিযোদ্ধা-সুবিধা : আপনি কি বীর মুক্তিযোদ্ধা? আপনি যদি বীর মুক্তিযোদ্ধা হয়ে থাকেন তাহলে নিম্নোক্তভাবে পৌরকর সুবিধা পেতে পারেন। শহীদ পরিবার, যুদ্ধাহত ও খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বসবাসকৃত বাড়ি বা ফ্ল্যাট সম্পূর্ণভাবে হোল্ডিং করের আওতামুক্ত। সাধারণ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়ি বা ফ্ল্যাটের ১৫০০ বর্গফুট পর্যন্ত হোল্ডিং করের আওতামুক্ত। নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে হোল্ডিং ট্যাক্স পরিশোধ করলে সর্বোচ্চ ১০% রিবেট সুবিধা পাবেন।

শহর অঞ্চলে হোল্ডিং ট্যাক্স গণনা হিসাব করার নিয়ম কি? ঢাকা শহরের কোন একটি স্থানে আপনার ৫০০ বর্গফুটের একটি ফ্ল্যাট বাসা রয়েছে। প্রতি বর্গফুটের জন্য আপনাকে ৬.৫০ টাকা হারে ট্যাক্স প্রদান করলে আপনার ৫০০ বর্গফুট বাসাবাড়ির মোট ট্যাক্স হবে (৫০০ x ৬.৫০) = ৩২৫০ টাকা। এটি হচ্ছে আপনার প্রতি মাসের ট্যাক্স। তবে যদি আপনি বাৎসরিক অর্থাৎ বারো মাসের ট্যাক্স একবারে প্রদান করতে চান সে ক্ষেত্রে আপনার দশ মাসের হোল্ডিং ট্যাক্স গণনা করা হবে। কারণ সরকার কর্তৃক দুই মাসের ট্যাক্স মওকুফ করা হয়।

সাধারণত বাসাবাড়ির বিভিন্ন সংস্কার করার জন্য বাসার মালিকের অনেক সময় খরচ করতে হয়, এজন্য দুই মাসের ট্যাক্সকে সরকার কর্তৃক মওকুফ করা হয়েছে। এক্ষেত্রে আপনাকে দশ মাসের ট্যাক্স দিলেই হয়ে যাবে। তাহলে প্রতি মাসের ট্যাক্সকে ১০ দিয়ে গুন করলে আপনার মোট ট্যাক্স আসে (৩২৫০ x ১০) = ৩২৫০০ টাকা। আপনাকে মাসিক অথবা বাৎসরিকভাবে ট্যাক্স দিতে হবে না। হোল্ডিং ট্যাক্স প্রতি তিন মাস পর দিতে হয়। আপনার মোট বাৎসরিক টাকা কে যদি আমরা চার দিয়ে গুন করি তাহলে আপনার প্রতিটি তিন মাসের ট্যাক্স চলে আসবে।

এক্ষেত্রে আপনার প্রতি তিন মাসের ট্যাক্স হবে (৩২৫০০ / ৪) = ৮১২৫ টাকা। সুতরাং আপনাকে প্রতি তিন মাস পর পর আপনার বাসা বাড়ির হোল্ডিং ট্যাক্স হিসেবে ৮১২৫ টাকা প্রদান করতে হবে।আপনার বাসাবাড়ির মূল পরিমাপ অনুযায়ী উপরোক্ত বর্গফুটের স্থানে সেই বর্গফুট বসিয়ে দিয়ে গুন করলেই আপনার হোল্ডিং ট্যাক্স এর পরিমাণ চলে আসবে। তবে এক্ষেত্রে আরেকটি বিষয় লক্ষ্যণীয় যে আপনি যদি নিজের ফ্ল্যাটে বসবাস করেন তাহলে আপনাকে ৪০% ট্যাক্স প্রদান করতে হবে না। ট্যাক্স হিসাব করার পর যদি আপনার ট্যাক্সের পরিমাণ বেশি মনে হয় সেক্ষেত্রে আপনাকে আপনার পৌরসভার পর্যালোচনা পরিষদ বরাবরের অধীনে একটি আবেদন করতে হবে। সে ক্ষেত্রে আপনার হোল্ডিং ট্যাক্স সর্বোচ্চ ১৫% পর্যন্ত মওকুফ হতে পারে।

হোল্ডিং ট্যাক্স নির্ধারণ পদ্ধতি । ইউনিয়ন পরিষদের বাড়ির ট্যাক্স কত টাকা?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *