সবার জন্য সুখবর! জন্মনিবন্ধন এখন আরো সহজ হলো। আগে যে ভোগান্তি পোহাতে হতো তার অনেকটাই লাঘব হবে এখন। কারণ এখন থেকে কোন শিশুর জন্ম নিবন্ধন করতে আর পিতা মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর লাগবে না। উল্লেখ্য, পূর্বে সন্তানের জন্মনিবন্ধন করতে গেলে পিতা মাতার জন্ম নিবন্ধন প্রয়োজন হতো না। তবে ২০২১ সালের ১ জানুয়ারি থেকে নিয়ম পরিবর্তন করা হয়। তখন বলা হয়, ২০০১ সালের পর জন্ম নেওয়া ব্যক্তিদের জন্মনিবন্ধন করতে হলে আবশ্যিকভাবে তার বাবা-মায়ের জন্মনিবন্ধন সনদ অবশ্যই প্রয়োজন হবে।

পিতা মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর বাধ্যতামূলক ছিল

ফলে পিতা-মাতার ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন (বাংলা ও ইংরেজি তথ্য সহ জন্মনিবন্ধন) না থাকলে তাদের সন্তানের জন্ম নিবন্ধন আবেদন করা যেত না। এতে করে জন্মনিবন্ধন করতে গিয়ে নানা ভোগান্তি তৈরি হয় এবং এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন অভিভাবকেরা।

এতদিন ২০০১ এরপর জন্মগ্রহণকারী সকলের জন্ম নিবন্ধন করতে নতুন সিদ্ধান্ত অবশ্যই একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এর ফলে সেবাপ্রার্থী লাখ লাখ মানুষের হয়রানি যেমন কমে যাবে তেমনি, পিতা-মাতার পরিচয়হীন শিশু, বাবা-মার জন্ম নিবন্ধনে ভুল-ত্রুটি ও সমস্যা থাকার কারণে কোন শিশুর জন্ম নিবন্ধন করতে পারছিলেন না তাদের আর সে সমস্যা থাকলো না। আসুন এ নিয়ে বিস্তারিত জানি। জন্ম নিবন্ধন আবেদন করার নিয়ম ২০২২

এখন থেকে জন্ম নিবন্ধন আবেদনে শুধুমাত্র পিতা-মাতার নাম লিখে আবেদনপত্র জমা দিলেই হবে। রেজিস্ট্রার জেনারেলের কার্যালয় বলছে, হাসপাতাল থেকে শিশু জন্মের পর দেয়া ছাড়পত্র বা টিকার কার্ড যেকোন একটি ডকুমেন্ট জমা দিয়েই জন্ম নিবন্ধন করা যাবে।

জন্ম নিবন্ধনে সন্তানের পিতা-মাতার ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন আর বাধ্যতামূলক নয় বরং ঐচ্ছিক

গত ২৭ জুলাই, ২০২২ থেকে নতুন জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করতে গেলে অনলাইনে মা বাবার জন্মসনদ নম্বর আর বাধ্যতামূলকভাবে চাওয়া হচ্ছে না। তবে কেউ ইচ্ছা করলে ঐচ্ছিক ভাবে আবেদনপত্রে পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর প্রদান করতে পারবেন। এতেকরে স্বয়ংক্রীয়ভাবে পিতা ও মাতার নাম তাদের জন্ম নিবন্ধন থেকে সংগ্রহ করা হবে।

যাদের পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধনে সমস্যা আছে তাদের ক্ষেত্রেও যেমন: বিয়ে বিচ্ছেদ হওয়া পরিবারের সন্তান, যাদের মা কিংবা বাবা যেকোনো একজনের সঙ্গে যোগাযোগ নেই ও পথশিশুদের জন্ম নিবন্ধন করার জন্য, পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না দিয়েও সরাসরি নাম টাইপ করেও এন্ট্রি করা যাবে। ফলে জন্ম নিবন্ধন প্রক্রিয়াটি সহজ হলো। পুরাতন জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করার নিয়ম ২০২২

৩য় লিঙ্গ, পিতা মাতার পরিচয়হীন, ভবঘুরে ও পথশিশুদের জন্ম নিবন্ধন করার উপায়

জন্ম ও মৃত্যুনিবন্ধন বিধিমালা ২০১৮–এর ৩ (গ) ধারা অনুসারে, কোনো ব্যক্তি প্রতিবন্ধী, এতিম, তৃতীয় লিঙ্গ, পিতৃ-মাতৃ পরিচয়হীন, পরিচয়হীন,ভবঘুরে, পথবাসী, বেদে বা ঠিকানাহীন বা যৌনকর্মী হলে তাদের যেসব তথ্য অসম্পূর্ণ থাকবে, সেসব স্থানে ‘অপ্রাপ্য’ লিখে তাদের জন্ম নিবন্ধন ও মৃত্যুনিবন্ধন করা যাবে। এসব ক্ষেত্রে তথ্যের ঘাটতির কারণ দেখিয়ে সংশ্লিষ্ট কার্যালয়ের নিবন্ধক জন্ম বা মৃত্যুনিবন্ধন প্রত্যাখ্যান করতে পারবেন না।

তবে, এসব ব্যক্তির জন্ম নিবন্ধন আবেদন অনলাইনের মাধ্যমে করা যাবে না বরং সরাসরি ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে আবেদন করতে হবে।

প্রশ্নোত্তর পর্ব

প্রশ্ন: তাহলে কি পিতা মাতার জন্ম নিবন্ধন এবং এনআইডি নম্বর না হলেও জন্ম নিবন্ধন করা যাবে?

উত্তর: হ্যাঁ। যাবে। শুধুমাত্র পিতা মাতার নাম দিয়েও সন্তানের জন্য নিবন্ধন হবে।

প্রশ্ন: আগে তো পিতা মাতার জন্ম নিবন্ধন ও জাতীয় পরিচয়পত্র ম্যাপিং করে থাকতো এখন কি থাকে না?

উত্তর: না থাকে না।

 

New Birth Registration Only parents name । নতুন নিয়মে জন্ম নিবন্ধন এখন আরও সহজ!

3 thoughts on “অনলাইন জন্ম নিবন্ধন নিয়ম ২০২৩ । নতুন নিয়মে জন্ম নিবন্ধন এখন আরো সহজ করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *