জজ এবং ম্যাজিস্ট্রেটের মধ্যে পার্থক্য জানবো আজ।

জজ এবং ম্যাজিস্ট্রেট দুজনই বিচারক এবং দুজনেরই বিচারিক ক্ষমতা রয়েছে। তবু জজ এবং ম্যাজিস্ট্রেটে মধ্যে কিছু পার্থক্য রয়েছে।

২০০৭ সালে যখন বাংলাদেশের নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ পৃথক করা হয় তখন দুই রকমের ম্যাজিস্ট্রেট তৈরি হয় যেমন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কারা?

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বলতে সে সকল ব্যক্তিকে বুঝায় যে সকল ব্যক্তি আদালতে বিচারকার্য পরিচালনা করে না বরং তারা ভ্রাম্যমান আদালত বা Mobile Court এর মাধ্যমে তারা তাদের বিচারকার্য পরিচালনা করে থাকেন। এর উদাহরণ বলা যায় TNO এবং UNO। সুতরাং TNO এবং UNO কে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বলা যায়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হতে চাইলে করনীয়ঃ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হতে চাইলে যেকোন বিষয়ে Honours পাশের পর BCS পরীক্ষায় প্রশাসন ক্যাডারে উত্তীর্ণ হতে হবে।

জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কারা?

জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বলতে সেসকল ব্যক্তিকে বুঝায় যারা আদালতে বিচার কার্য পরিচালনা করে থাকেন যাদের কে আমরা জজ বা Judge বলে থাকি।

জজ বা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের সাথে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের অন্যতম পার্থক্য হলো জজ একজন আসামিকে মৃত্যুদন্ড বা যাবতজীবন কারাদণ্ড দিতে পারেন। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সে ক্ষমতা নেই।

একজন জজের অবশ্যই আইনের উপর ডিগ্রি থাকে তবে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের আইনের উপর কোন ডিগ্রি থাকতেই পারে নাও পারে।

জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হওয়ার উপায়ঃ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হতে হলে HSC পাশের পর LLB বা আইন বিষয়ে পড়াশোনা করতে হবে ও পাশ করতে হবে। এবং পরবর্তীতে Bangladesh Judicial Service Commission কর্তৃক আয়োজিত BJS Exam এ উত্তীর্ণ হতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *