সরকারি চাকুরির আবেদনে ছবি ও স্বাক্ষর নির্ভুলভাবে দিচ্ছেন তো?

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে সকল চাকুরী প্রার্থীর প্রথম পছন্দ সরকারি চাকুরি। কেন পছন্দ হবেই না বলুন? ভাল চাকুরির ৩ টি মাপকাঠি হতে পারে যেমনঃ চাকুরির নিরাপত্তা, আর্থিক সুযোগ সুবিধা এবং সামাজিক মর্যাদা। এসব বৈশিষ্ট্যে সরকারি চাকুরির কোন তুলনা নেই। অন্যদিকে বেসরকারিও অনেক ভাল চাকুরি রয়েছে।

এখন চাকুরির আবেদন অনলাইন এবং সরাসরি করার সুযোগ রয়েছে। এসব চাকুরির আবেদন করার সময় আপনি সঠিকভাবে আবেদন করছেন তো? আবেদন করার সময় ছবি এবং স্বাক্ষর যথাযথ ভাবে দিচ্ছেন তো? সুন্দরভাবে ছবি ও স্বাক্ষর বিষয়টি আপনার ব্যক্তিত্ব ও রুচিবোধের সাথে সম্পর্কিত।

আজ চলুন জানি, চাকুরির আবেদন করার সময় কিভাবে নির্ভুল ভাবে ছবি এবং স্বাক্ষর প্রদান করবেন।

প্রথমেই জানি ছবি ও স্বাক্ষর প্রদানের সময় কি কি ভুল হয়ে থাকে।

ক. ত্যাড়া বাঁকা হয়ে দাঁড়ানো

খ. চোখে সানগ্লাস থাকা

গ. ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড ঠিক না থাকা

ঘ. গেঞ্জি ও টিশার্ট পড়া ছবি

ঙ. অস্পষ্ট ও ঘোলাটে ছবি

চ. ছবির সাথে বাস্তবের চেহারার কোন মিল না থাকা

ছ. ৪/৫ বছরের পুরনো ছবি ব্যবহার করা

জ. মোবাইলে তোলা ছবি প্রিন্ট করে ব্যবহার করা

ছবি প্রদানের ক্ষেত্রে উপরোক্ত কাজ গুলো কখনোই করবেন না।

এখন জানুন কেমন ধরনের ছবি দেয়া উচিত।

১. ল্যাব প্রিন্টেড ছবি ব্যবহার করুন। আপনার ছবি যেন স্পষ্ট, শার্প ও পরিচ্ছন্ন হয় সেদিকে খেয়াল রাখুন।

২. ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড সাদা বা নিল যাই হোক সমস্যা নাই তবে খেয়াল রাখুন তা যেন আপনার জামার রং এর সাথে মিলে না যায়। রং মিলে গেলে ছবি একদমই সুন্দর দেখাবে না।

৩. শার্টের বা জামার প্রতিটি বোতাম লাগিয়ে রাখুন এবং চুল আঁচড়ানো আছে কিনা খেয়াল রাখুন।

৪. ছবির স্ক্যান কপি (সম্ভব হলে সফট কপি) সংগ্রহ করুন। অনলাইন চাকুরির আবেদনে এটা ব্যবহার করবেন।

৫. যথাসম্ভর সুন্দর পোশাকে ছবি তুলুন। ব্লেজার ও টাই বাধ্যতামূলক নয়। তবে যদি আপনার সংগ্রহে থাকে তবে ব্লেজার, টাই পড়তে পারে। মেয়েদের ক্ষেত্রে থ্রিপিস, শাড়ি, হিজাব যেকোনটি পড়তে পারেন।

৬. স্বাক্ষর যেমন খুশি দিতে পারেন, যেকোন ভাষাতেও দিতে পারেন। তবে চাকুরির প্রতিটি ধাপে একইভাবে স্বাক্ষর দেয়া জরুরি। সম্ভব হলে সকল চাকুরিতে একই স্বাক্ষর ব্যবহার করুন তাতে করে স্বাক্ষরটি আপনার মনে থাকে এবং সব জায়গায় একই রকম হবে।

৭. স্বাক্ষর ছোট হওয়া বাঞ্ছনীয়, তবে চাইলে পুরো নামও লিখতে পারেন।

৮. অনলাইন স্বাক্ষর আপলোডে স্বাক্ষর যেন স্পষ্ট দেখায়।

৯. অনলাইন আবেদনে ছবির সাইজ ৩০০*৩০০ এবং ৩০০*৮০ অথবা নিয়োগকর্তার নির্দেশিত সাইজমত দিন। কত কিলোবাইটের মধ্যে হতে হবে তা খেয়াল রাখুন।

উপরোক্ত বিষয় গুলো মেনে চললে সুন্দর ছবি ও স্বাক্ষর যেকোন চাকুরির আবেদন করার সময় ব্যবহার করতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *