অনিবাসী বাংলাদেশী এবং বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বিদেশী নাগরিকগণ কেবল ইউএস ডলার বন্ড ক্রয় করতে পারবেন-ইউএস ডলার প্রিমিয়াম বন্ড ২০২৪

ইউএস ডলার বন্ড কখন চালু হয়? বিদেশে কর্মরত প্রবাসী বাংলাদেশী এবং বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বিদেশী নাগরিকগণকে তাদের উপার্জিত বৈদেশিক মূদ্রা অধিকতর লাভে বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য আকৃষ্ট করার লক্ষ্যে ২০০২ সনে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ড নামক সঞ্চয় বন্ড প্রবর্তন করেছে। ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ড হ’ল বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রবর্তিতএক প্রকার মুনাফাভিত্তিক সঞ্চয় বন্ড । প্রবাসী বাংলাদেশী এবং বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বিদেশী নাগরিকগণ ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ড ক্রয় করতে পারে।

ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ড টাকায় না ডলারে ইস্যু করা হয়? এ বন্ড মার্কিন ডলারে ইস্যু করা হয়। এ বন্ড তিন(০৩) বছর মেয়াদী । হ্যাঁ, মেয়াদপূর্তির পর এ বন্ড স্বয়ংক্রিয়ভাবে পুন:বিনিয়োগযোগ্য । প্রবাসী বাংলাদেশী এবং বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বিদেশী নাগরিকগণ বিদেশ থেকে তার বৈদেশিক মুদ্রা (এফ.সি) হিসাবে প্রেরিত অর্থ দ্বারা বন্ডের ক্রয়মূল্য পরিশোধ করে এ বন্ড ক্রয় করতে পারে। তাছাড়া, বৈদেশিক মুদ্রার চেক বা ড্রাফটের মাধ্যমে মূল্য পরিশোধ করেও এ বন্ড ক্রয় করতে পারে ।

ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ড ক্রয়ের জন্য কিভাবে আবেদন করতে হয়? বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশী তফসিলি ব্যাংকসমূহের শাখা এবং তাদের আওতাধীন এক্সচেঞ্জ কোম্পানী ও দেশে তফসিলি ব্যাংকসমূহের এডি শাখাসমূহে প্রিমিয়াম বন্ড ক্রয়ের আবেদনপত্র ডিপিবি-১ ফরম পূরণ করে বন্ড ক্রয়ের আবেদন করা যায় । না, ডিপিবি-১ ফরম ইস্যু অফিসগুলোতে বিনামূল্যে পাওয়া যায় । না, ডিপিবি-১ ফরম ইস্যু অফিসগুলোতে বিনামূল্যে পাওয়া যায় । বিদেশস্থ ইস্যু অফিস থেকে এ বন্ড নগদায়ন, মুনাফা উত্তোলন এবং পুনঃবিনিয়োগ করা যায় না। তবে, বিদেশে বসবাসকারী কোন ব্যক্তি তার আবেদনপত্রে উল্লিখিত বাংলাদেশস্থ প্রদানকারী অফিসে (Paying Office) প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রেরণ করে উক্ত বন্ড নগদায়ন, মুনাফা উত্তোলন এবং পুনঃবিনিয়োগ করার সুযোগ পাবেন এবং প্রযোজ্য ক্ষেত্রে প্রাপ্ত অর্থ বন্ড ধারকের আবেদন মোতাবেক এফ.সি একাউন্ট অথবা এফটিটি/এফডিডি এর মাধ্যমে বিদেশে ফেরৎ নেয়ার সুযোগ পাবেন ।

প্রবাসী বন্ড সোনালী ব্যাংক ২০২৪ । বিদেশে অবস্থিত ব্যাংক হতে প্রবাসীগণ এটি ক্রয় করতে পারবেন

বর্তমানে ৫০০; ১,০০০; ৫০০০; ১০,০০০ এবং ৫০,০০০ মার্কিন ডলার মূল্যমানের ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ড চালু আছে।  না, এ বন্ডে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কোন ক্রয় সীমা নাই । হ্যাঁ, এ বন্ড বাংলাদেশী তফসিলি ব্যাংকসমূহে জামানত রেখে ঋণ গ্রহণ করা যায়।

ইউএস ডলার প্রিমিয়াম বন্ড ২০২৪ । বিনিয়োগে উৎসাহী করতে মুনাফার হার বৃদ্ধি

Caption: More Details Full PDF Download

ওয়েজ আর্নার ডেভেলপমেন্ট বন্ড ২০২৪ । ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ড  নিয়ে জিজ্ঞাসিত প্রশ্নোত্তর পর্ব

  1. ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডের মুনাফার হার কত ? ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডের মুনাফার হার মেয়াদান্তে ৭.৫০%
  2. ১ বছর পূর্ণ হওয়ার পূর্বে নগদায়ন করলে মুনাফা পাওয়া যায়? ০১ বছরের পূর্বে নগয়াদন করলে কোনো মুনাফা দেয়া হয় না । ০১ বছর পর কিন্তু ০২ বছরের পূর্বে মূনাফার হার = ৬.৫০% ০২ বছর পর কিন্তু ০৩ বছরের পূর্বে মূনাফার হার = ৭.০০% ০৩ বছর পূর্তির পর মূনাফার হার = ৭.৫০%
  3. ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডের মুনাফা কি ডলারে নেয়া যায়? এ বন্ডের মুনাফা ডলারেহিসাবায়ন করার পর প্রাপ্য অর্থ সমমূল্য বাংলাদেশী টাকায় প্রদান করা হয় ।
  4. ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডের আসল অর্থ কি টাকায় নেয়া যায়? ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডের আসল অর্থ সবসময় ডলারে প্রদান করা হয় । তবে, বন্ড ধারক ইচ্ছা করলে মূল অর্থ সমমূল্য টাকায়ও নিতে পারে ।
  5. ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডে বিনিয়োগকৃত মূল অর্থ কি বিদেশে প্রত্যাবাসন করা যায়? হ্যাঁ, ইউ. এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডের মূল অর্থ বৈদেশিক মুদ্রায় বিদেশে প্রত্যাবাসন করা যায় ।
  6. ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডে বিনিয়োগকৃত অর্থ কি কর মুক্ত? হ্যাঁ, ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডে বিনিয়োগকৃত মূল অর্থ ও অর্জিত মুনাফা উভয়ই আয়কর মুক্ত ।
  7. ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডে কি নমিনী নিয়োগ করা যায়? হ্যাঁ, ক্রেতা তার ক্রয়কৃত বন্ডের নমিনী নিয়োগ করতে পারে । তবে প্রতিটি বন্ড স্ক্রিপের জন্য একজনের বেশি নমিনী নিয়োগ করা যায় না ।
  8. নমিনী কি বাতিল/পরিবর্তন করা যায়? হ্যাঁ, ক্রেতা/বন্ডধারক তার মনোনীত নমিনীকে যে কোন সময় বাতিল/পরিবর্তন করতে পারে । এক্ষেত্রে বন্ডধারককে বন্ডের ইস্যু অফিসে আবেদন করতে হয় ।
  9. বন্ড ধারকের মৃত্যুর পূর্বেই যদি নমিনীর মৃত্যু হয় সেক্ষেত্রে কি নতুন নমিনী নিয়োগ করা যায়? হ্যাঁ, বন্ড ধারকের মৃত্যুর পূর্বেই নমিনীর মৃত্যু হলে বন্ডধারক নতুন নমিনী নিয়োগ করতে পারে ।
  10. ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডে বিনিয়োগের জন্য কি সিআইপি (CIP) মর্যাদা দেয়া হয়? হ্যাঁ, এ বন্ডে ১.০০ মিলিয়ন বা তদূর্ধ্ব মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করলে ক্রেতাকে সিআইপি(CIP) হিসাবে গণ্য করা হয় এবং বিনিয়োগকারী সিআইপিদের জন্য প্রযোজ্য নানাবিধ রাষ্ট্রীয় সুযোগ-সুবিধা প্রাপ্য হন ।
  11. সিআইপি(CIP) সুবিধা পাওয়ার নিয়ম কি? সিআইপি সুবিধা পেতে বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রনালয়েরঅভ্যন্তরীন সম্পদ বিভাগ বরাবর আবেদন করতে হয় ।
  12. ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডে কি মৃত্যু-ঝুঁকি সুবিধা আছে? হ্যাঁ, বন্ড ধারককের মৃত্যুতে তার ক্রয়কৃত বন্ডের উপর নমিনীকে মৃত্যু-ঝুঁকি সুবিধা দেয়া হয় ।
  13. মৃত্যু-ঝুঁকি সুবিধা পাওয়ার নিয়ম কি? মৃত্যু-ঝুঁকি সুবিধা পেতে বন্ড ধারককের মৃত্যুর তারিখ হতে ০৩ মাসের মধ্যে নমিনীকে আবেদন করতে হয় ।মৃত্যু-ঝুঁকি সুবিধার জন্য কি পরিমান আর্থিক সুবিধা দেয়া হয়?ক্রেতার মৃত্যুতে তার ক্রয়কৃত বন্ডের ১৫% হতে ২৫% পর্যন্ত মৃত্যু-ঝুঁকি সুবিধা দেয়া হয়। তবে সর্বোচ্চ ২০,০০,000/= টাকার ঊর্ধ্বে নয় ।
  14. মৃত্যু-ঝুঁকি সুবিধার অর্থ কি ডলারে দেয়া হয়? না, ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডের মৃত্যু-ঝুঁকি সুবিধার অর্থ সবসময় টাকায় দেয়া হয় ।
  15. মৃত্যু-ঝুঁকি সুবিধার অর্থ গ্রহনের ক্ষেত্রে বন্ডের নমিনীর মৃত্যু হলে কিভাবে অর্থ পাওয়া যাবে? ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডের বন্ড ধারক ও নমিনী উভয়ের মৃত্যু হলে বৈধ উত্তরাধিকারী(গণ) মৃত্যু-ঝুঁকি সুবিধার অর্থ পাবেন
  16. ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডে মৃত্যু-ঝুঁকি হিসেবে প্রাপ্ত অর্থ কি বিদেশে ফেরৎ নেয়া যায়? ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ডের বন্ড ধারক ও নমিনী উভয়ের মৃত্যু হলে বৈধ উত্তরাধিকারী(গণ) অনিবাসী বাংলাদেশী হলে মৃত্যু- ঝুঁকি সুবিধা হিসেবে প্রাপ্ত অর্থ সমমূল্য বৈদেশিক মুদ্রায় বিদেশে ফেরৎ নিয়ে যেতে পারবে।
  17. ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ড হারিয়ে গেলে বা চুরি হলে কি ডুপ্লিকেট বন্ড ইস্যু করা যায়? ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়াম বন্ড হারিয়ে গেলে বা চুরি হলে ডুপ্লিকেট বন্ড ইস্যু করা হয়।

হারিয়ে যাওয়া বন্ডের ডুপ্লিকেট কপি পেতে কত দিন লাগে?

নষ্ট ও বিকৃত বন্ডের ক্ষেত্রে বন্ড ধারককে প্রদানকারী অফিসে আবেদন করতে হবে এবং ডুপ্লিকেট বন্ড ইস্যুর ফিসহ নষ্ট ও বিকৃত বন্ড জমা দিলে ডুপ্লিকেট বন্ড ইস্যু করা হয় । ইউ.এস. ডলার প্রিমিয়ামবন্ডের ডুপ্লিকেট বন্ড ইস্যুর ফি নিম্নরূপ:- ৫০০ ও ১০০ মূল্যমানের প্রতি বন্ড স্ক্রিপের জন্য US$ 5, ৫০০০ ও ১০০০০ মূল্যমানের প্রতি বন্ড স্ক্রিপের জন্য US$ 10, ৫০০০০ মূল্যমানের প্রতি বন্ড স্ক্রিপের জন্য US$ 15 প্রদান করতে হয়। হারিয়ে যাওয়া বা চুরি হওয়া বন্ডের বিপরীতে ডুপ্লিকেট বন্ড ইস্যুর জন্য ০২ মাস সময় লাগে । উল্লিখিত তথ্যের অতিরিক্ত কোন তথ্য বা ব্যাখ্যার প্রয়োজন হলে যোগাযোগ করুনঃ মহাবব্যবস্থাপক, ডেট ম্যানেজমেন্ট ডিপার্টমেন্ট, বাংলাদেশ ব্যাংক, প্রধান কার্যালয়, ঢাকা। ফোনঃ ৯৫৩০১৩১ ফ্যাক্সঃ ৯৫৩০২০৫

সর্বনিম্ন ৫০০ ডলারের বন্ড কোথায় পাওয়া যাবে?

ইউএস ডলার ৫০০; ইউএস ডলার ১,০০০; ইউএস ডলার ৫,০০০; ইউএস ডলার ১০,০০০ এবং ইউএস ডলার ৫০,০০০ মূল্যমানের হয়ে থাকে। বাংলাদেশ ব্যাংক, দেশে অবস্থিত যে কোন তফশিলী ব্যাংকের অথরাইজড ডিলার (AD) শাখা এবং বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশের তফসিলী ব্যাংকের শাখা, এক্সচেঞ্জ হাউস, এক্সচেঞ্জ কোম্পানি হতে ক্রয় করা যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *