কয়েকদিন পরই আপনার কাঙ্খিত চাকরির ইন্টারভিউ- প্রথমেই আপনাকে অভিনন্দন। কিন্তু আপনি কতখানি প্রস্তুত? ইন্টারভিউ এর কিছু সাধারণ প্রশ্ন রয়েছে যা প্রায় সকল ইন্টারভিউ এ জিজ্ঞাসা করা হয়। যেহেতু প্রশ্নগুলো খুবই সাধারণ তাই আপনার নিয়োগকর্তাও আশা করেন যে আপনি এ সকল প্রশ্নের কার্যকরী উত্তর খুব স্বাচ্ছন্দ্যে দিতে পারেন ।

প্রশ্নগুলো এমন নয় যে তার উত্তর আপনাকে মুখস্থ করে রাখতে হবে। কিন্ত প্রশ্নগুলো সম্পর্কে আপনার পূর্ব ধারণা থাকলে আপনার উত্তর গুলোর উপস্থাপনা হবে খুব শক্তিশালী এবং স্বাচ্ছন্দ্যেপূর্ণ।

চলুন জেনে নেই প্রচলিত ইন্টারভিউ প্রশ্ন এবং তার উত্তর

প্রশ্ন-(১) নিজের সম্পর্কে বলুন

ইন্টারভিউ এ প্রথমেই যে প্রশ্নটি করা হয় তা হল আপনি নিজের সম্পর্কে বলুন। সুতরাং আপনি নিজেকে এ প্রশ্নের উত্তরের জন্য প্রস্তুত রাখুন।

নিয়োগকর্তা আপনার উত্তরে যা আশা করেন:

আপনার উত্তরে আপনার বেড়ে উঠা, পড়াশুনা, আপনার আগ্রহ, আপনার মটিবেশন, আপনার শখ এবং পূর্ব কোন অভিজ্ঞতা বর্ণনা করুন যা এই চাকুরির জন্য সরাসরি সম্পর্কিত।

প্রশ্ন-(২) আপনি কেন এই চাকরি পেতে চাচ্ছেন?

আপনি আপনার আগ্রহ ,পূর্ব অভিজ্ঞতা ইত্যাদি বলতে পারেন।

নিয়োগকর্তা আপনার উত্তরে যা আশা করেন:

আপনি আপনার উত্তরে সংশ্লিষ্ট কাজ (Job Description), সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান, আপনার পড়াশুনা, আগ্রহ এবং পূর্ব অভিজ্ঞতা ইত্যাদি বিষয়ের মধ্যে সংযোগ করার চেষ্টা করুন। পাশাপাশি উক্ত প্রতিষ্ঠানে পণ্য, সেবা, কালচার এবং মিশন ইত্যাদি বিষয়ের সাথে নিজেকে রিলেট করতে পারেন। ফলে উক্ত প্রতিষ্টান সম্পর্কে আপনি ভাল ভাবে অবগত তা নিয়োগকর্তার সামনে উপস্থাপন করুন।

প্রশ্ন-(৩) আমরা কেন আপনাকে জব টি দিবো?

জব সার্কুলারে উল্লেখিত যোগ্যতা সমূহের আলোকে নিজেকে উপস্থাপন করুন আত্নবিশ্বাসের সাথে।

নিয়োগকর্তা আপনার উত্তরে যা আশা করেন:

নিয়োগকর্তা জানতে চান আপনার মাঝে জব সার্কুলারে বর্ণিত সকল যোগ্যতা রয়েছে কিনা পাশাপাশি আপনিই সেরা প্রার্থী কিনা। সুতরাং আপনিই সেরাদের একজন এমন ভাবেই উপস্থাপন করুন।

প্রশ্ন-(৪) আপনার শক্তিমত্তা (Strength)কি

এ প্রশ্নের উত্তরে “Show” rather than “tell” পদ্ধতি অনুসরণ করুন। অর্থাৎ আপনি একজন খুব ভাল Problem Solver বলার চেয়ে একটি পূর্ব ঘটনা তুলে ধরুন, সবচেয়ে ভাল হয় যদি আপনি আপনার প্রফেশনাল ক্যারিয়ার থেকে তুলে ধরেন। আর আপনি ফ্রেশার হলে আপনার স্টাডি লাইফ থেকেও তুলে ধরতে পারেন।

নিয়োগকর্তা আপনার উত্তরে যা আশা করেন:

নিয়োগকর্তা নিশ্চিত হতে চান আপনি উক্ত চাকরির জন্য কতটা যোগ্য। তাই উক্ত চাকরির কাজের ধরণ মাথায় রেখে আপনার যোগ্যতা তুলে ধরুন যেমন: আপনি খুব ভাল Problem Solver অথবা আপনি under stress কাজ করতে পারেন।

প্রশ্ন-(৫) আপনার দুর্বলতা কি?

প্রশ্নটি নেতিবাচক হলেও আপনার নিয়োগকর্তা এখনো জানতে চাচ্ছেন যে আপনিই যোগ্য কিনা। এক্ষেত্রে আপনি নতুন কিছুর সাথে নিজেকে খাপ খাওয়ানোর বিষয়ে তুলে ধরুন। পাশাপাশি তুলে ধরুন আপনি নতুন কিছু শিখতে আগ্রহী।

নিয়োগকর্তা আপনার উত্তরে যা আশা করেন:

“Weaknesses into strength” আপনি আপনার দুর্বলতাকে আপনার শক্তি (Strength) হিসেবে উপস্থাপন করবেন। যেখানে আপনি সকল পরিস্থিতিতে নিজেকে খাপ খাওয়ানোর বিষয়ে তুলে ধরবেন। আপনি তুলে ধরতে পারেন আপনি যে সকল জায়গায় (Skill) উন্নতি কতে চাচ্ছেন এবং ইতোমধ্যে সেজন্য আপনি কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন।

প্রশ্ন-(৬) বর্তমান চাকরি কেন ছাড়তে চাচ্ছেন?

সততার সাথে আপনার বক্তব্য তুলে ধরুন যেখানে আপনি আপনার পরিস্থিতি তুলে ধরতে পারেন।

নিয়োগকর্তা আপনার উত্তরে যা আশা করেন:

আপনি কেন চাকরি ছাড়ছেন তা জানার আদতে মূলত জানতে চাচ্ছেন কেন আপনি এ প্রতিষ্ঠানে আসতে চাচ্ছেন। সুতরাং আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা তুলে ধরুন।

প্রশ্ন (৭) আপনার প্রত্যাশিত বেতন কত?

বেতন বিষয়ে আপনাকে কৌশলি হতে হবে। কারণ নিশ্চয়ই আপনি জবের ধরণ এবং আপনার প্রত্যাশা অনুযায়ী সর্বোচ্চ বেতনই চাইবেন। কিন্তু আপনি নিশ্চয়ই একই সাথে চাকরিটাও পেতে চাইবেন। তাই উক্ত প্রতিষ্ঠানের স্যালারি স্ট্রাকচার সম্পর্কে আগেই খোঁজখরব রাখুন।

নিয়োগকর্তা আপনার উত্তরে যা আশা করেন:

আপনি কত টাকা পেতে চান তা নিয়োগকর্তা জানতে চান। বেশি বললে আপনি হয়তো প্রতিযোগিতায় টিকতে পারবেন না, আবার কম বললে তারা আপনাকে কমই অফার করবে।

প্রশ্ন (৮) আপনি Stress এবং Pressure কিভাবে মোকাবেলা করেন?

আপনি কি high stress situation এ কাজ করতে সক্ষম? বিরূপ পরিস্থিতি আপনি কিভাবে মোকাবেলা করেন? আপনি এ সকল প্রশ্নের উত্তরে আপনার পূর্ব কোন অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারেন।

নিয়োগকর্তা আপনার উত্তরে যা আশা করেন:

কঠিন পরিস্থিতিতে আপনার কাজ করার সক্ষমতা জানতে চান। প্রতিষ্ঠানের Stress আপনি কিভাবে মোকাবেলা করবেন তা জানাই এ প্রশ্নের মূল উদ্দেশ্য। আপনার পূর্ব অভিজ্ঞতার আলোকে আপনার প্রশ্নের উত্তর গুছিয়ে রাখুন।

প্রশ্ন (৯) আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কী?

আপনি এ প্রতিষ্ঠানে স্থায়ী হবেন নাকি অন্য কোথাও সুইচ করবেন তা জানাই মূল উদ্দেশ্য। আপনি আপনার উত্তর উক্ত জব এবং প্রতিষ্ঠানের সাথেই সম্পর্কিত রাখুন।

প্রশ্ন (১০) আপনার কোন জিজ্ঞাসা আছে?

ইন্টারভিউ শেষে বেশির ভাগ প্রশ্নকর্তা জিজ্ঞেস করেন আপনার কোন জিজ্ঞাসা/ প্রশ্ন আছে কিনা? এটি আপনার জন্য বিশেষ একটি সুযোগ। সুতরাং আপনার কিছু প্রশ্ন প্রস্তুত রাখুন। কারন আপনার যদি কোন জিজ্ঞাসা/ প্রশ্ন না থাকে তবে অনেক ক্ষেত্রে আপনাকে উদাসী বা কৌতুহলশূন্য মনে হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *