ফারায়েজ অনুযায়ী ১২ জন অংশীদার যেভাবে সম্পত্তি পাবে।

জমি জমার হিসাব একটু জটিল কিন্তু নিজ প্রয়োজনে সবাইকেই জানতে এবং শিখতে হয়। আজ আমরা অংশ ভাগাভাগি শিখবো।

পিতা যেভাবে সম্পদ পাবে

(ক) মৃতের পুত্র/পুত্রের পুত্র বা তার নিয়ে কেহ থাকলে পিতা পাবে ১৬৭ . অংশ। (খ) পুত্র না থাকলে কন্যা বা তার নিমের কেহ থাকলে পিতা ১৬৭ অংশ এবং অসাব সম্পত্তি পাবে । (গ) মৃতের পুত্র, কন্যা বা তার নিম কেহ না থাকলে পিতা আসাবা/রেসিডুয়ারী হবে।

দাদা যেভাবে সম্পদ পাবে

দাদা উপরে বর্ণিত পিতার ন্যায় সম্পত্তির অংশ পাবে তবে পিতা জীবিত থাকলে দাদা কোন সম্পত্তি পাবে না। পিতার অবর্তমানেই কেবল পিতার উল্লেখিত তিন অবস্থায় দাদা সম্পত্তি পাবে।

ব্যতিক্রম : (ক) পিতা থাকলে দাদী অংশ পাবে না, কিন্তু পিতা না থাকলে এবং দাদা থাকলে দাদার সঙ্গে দাদী অংশ পাবে। (খ) মাতা, পিতা এবং স্বামী/স্ত্রী রেখে কেহ মারা | গেলে স্বামী বা স্ত্রীর অংশ দেওয়ার পর বাকী সম্পত্তির ৩৩৩ মাতা এবং ৬৬৭ অংশ আসাবা হিসেবে পিতা পাবে।

স্বামী যেভাবে সম্পদ পাবে

(ক) সন্তান বা সন্তানের সন্তান বা তার নিয়ে কেহ না থাকলে ৫০০ অংশ। (খ) সন্তান বা সন্তানের সন্তান থাকলে পাবে ২৫০ অংশ। (৪) স্ত্রী : (ক) সন্তান সন্তানের পুত্র/ যতই নিমতম হােক না থাকলে পাবে ২৫০ অংশ (খ) সন্তান বা সন্তানের সন্তান থাকলে পাবে ১২৫ অংশ।

মাতা যেভাবে সম্পদ পাবে

(ক) সন্তান সন্তানের পুত্র বা তার নিমের কেহ থাকলে ভাই/বােন এর দু’জনই থাকলে মাতা পাবে ১৬৭ অংশ। (খ) ‘ক’ দফায় উল্লেখিত ওয়ারিশগণ না থাকলে মাতা পূর্ণ সম্পত্তির ৩৩৩ অংশ পাবে।  (গ) পিতা এবং স্বামী/স্ত্রী বর্তমান থাকলে, স্বামী বা স্ত্রীকে। দেয়ার পর মাতা পাৰে বাকী সম্পত্তির ৩৩৩ অংশ।

দাদী/ নানী যেভাবে সম্পদ পাবে

পিতা/মাতা না থাকলে দাদী/নানী ১৬৭ অংশ পাবে।

কন্যা যেভাবে সম্পদ পাবে

(ক) পুত্র না থাকলে কন্যা পাবে ৫০০ অংশ। (খ) পুত্র থাকলে কন্যা পুত্রের অর্ধেক পাবে।(গ) দুই বা ততােধিক কন্যা- থাকলে একত্রে পাবে ৬৬৭ অংশ।

পুত্রের কন্যা যেভাবে সম্পদ পাবে

(ক) পুত্র/কন্যা পুত্রের পুত্র কন্যা না থাকলে ৬৬৭ অংশ (একাধিক হলে)।(খ) মৃতের এক কন্যা থাকলে পুত্রের কন্যা ১৬৭ অংশ পাবে। |

বৈপিত্রেয় ভাই যেভাবে সম্পদ পাবে

সন্তান সন্তানের সন্তান, পিতা/ দাদা না থাকলে ১৬৭ অংশ, একাধিক হলে একত্রে ৩৩৩ অংশ পাবে।

বৈপিত্রেয় বােন যেভাবে সম্পদ পাবে

বৈপিত্রেয় ভাইয়ের ন্যায় পাবে।

বােন যেভাবে সম্পদ পাবে

(ক) নিজের সন্তান সন্তানের পুত্র/ পিতা/ দাদা/ ভাই না থাকলে ৫০০ অংশ, একাধিক হলে একত্রে ৬৬৭ অংশ পাবে। (খ) বােন সহােদর ভাইয়ের অর্ধেক পাবে। (গ) মৃতের পুত্র/ পুত্রের পুত্র/ পিতা/ দাদা থাকলে বােন কোন অংশ পাবে না। |

বৈমাত্রেয় বােন যেভাবে সম্পদ পাবে

(ক) সন্তান সন্তানের পুত্র/ পিতা/ দাদা/ ভাই বোেন/ বৈমাত্রেয় ভাই না থাকলে ৫০০ অংশ, একাধিক বৈঃ বােন হলে পাবে ৬৬৭ অংশ। (খ) বৈমাত্রেয় ভাই থাকলে বৈমাত্রেয় বােন তার সঙ্গে আসাবা হবে। (গ) একজন সহােদর বােন থাকলে বৈমাত্রেয় বােন ৬৭১ অংশ পাবে কিন্তু একাধিক সহােদর বােন থাকলে বৈমাত্রেয় বােন পাবে না। (ঘ) মৃতের কন্যা/ পুত্রের কন্যা থাকলে বৈমাত্রেয় বােন আসাবা হবে এবং অংশ পাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *