দেশের নাগরিক হিসেবে আপনি জরুরি মুহুর্তে হটলাইন নম্বরে কল করতে পারেন- এজন্য মোবাইল হতে ইমার্জেন্সী নম্বরে কল করেও আপনি কাঙ্খিত নম্বর পেতে পারেন–বাংলাদেশের জরুরি সেবা নাম্বার

জরুরি সেবা কি?–জরুরি সেবা হলো এমন সেবা যা জরুরি পরিস্থিতিতে জনগণকে সাহায্য প্রদান করে। এই সেবাগুলি দ্রুত এবং কার্যকরভাবে প্রদান করা  হয় যাতে জীবন বা সম্পত্তির ক্ষতি রোধ করা যায়। জরুরি সেবার কিছু উদাহরণ হল: আগুন লাগলে ফায়ার সার্ভিস জরুরি সেবা প্রদান করে। অপরাধের ঘটনায় পুলিশ জরুরি সেবা প্রদান করে। অসুস্থ বা আহত ব্যক্তিদের হাসপাতালে নিয়ে যেতে অ্যাম্বুলেন্স জরুরি সেবা প্রদান করে।

দূর্ঘটনায় পড়লে কোথায় কল করবেন? ৯৯৯ জরুরী সেবা নম্বর। দুর্ঘটনায় আহত বা হারিয়ে যাওয়া ব্যক্তিদের খুঁজে বের করতে এবং উদ্ধার করতে খোঁজ ও উদ্ধারকারী দল জরুরি সেবা প্রদান করে। প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় বিপর্যয় ত্রাণ সংস্থা জরুরি সেবা প্রদান করে। জরুরি সেবার গুরুত্ব অনেক। জরুরি সেবা জীবন বাঁচাতে এবং সম্পত্তির ক্ষতি রোধ করতে সাহায্য করে। জরুরি সেবা দ্রুত এবং কার্যকরভাবে প্রদান করা গুরুত্বপূর্ণ যাতে জরুরী পরিস্থিতিতে ক্ষয়ক্ষতি কমিয়ে আনা যায়।

নারী বা শিশু নির্যাতিত হলে কোথায় কল করবেন? জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯ । এছাড়াও জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ১০৯ যা নারী ও শিশু নির্যাতন সাহায্য নম্বর হিসেবেও পরিচিত। অধিকন্তু ১০৯৮ নম্বরে কল করে শিশুদের জরুরি সহায়তা পেতে পারেন। জরুরি পরিস্থিতিতে শান্ত থাকুন এবং স্পষ্টভাবে কথা বলুন।আপনার অবস্থান এবং প্রয়োজনীয় সহায়তা সম্পর্কে সঠিক তথ্য দিন। ফোন কেটে দেওয়ার আগে নিশ্চিত করুন যে আপনার সাহায্য পাঠানো হয়েছে।

জরুরি স্বাস্থ্য সেবা নাম্বার । সকল হেল্প লাইন । জরুরি সেবা প্রতিষ্ঠান কোনগুলো

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক দারুণ সেবা স্বাস্থ্য বাতায়ন। ১৬২৬৩ নম্বরটিতে ফোন করলেই মিলছে স্বাস্থ্যসেবা। কথা বলছেন একজন ডাক্তার। যিনি রোগ বা সমস্যার ধরন বুঝে পরামর্শ দিচ্ছেন।

বাংলাদেশের জরুরি সেবা নাম্বার । সরকারি ইমার্জেন্সি স্বাস্থ্য সেবা নাম্বার কত?

Caption: Govt. Help Line

টোল ফ্রি জরুরি সেবা ২০২৪ । কিছু নম্বরে কল করার জন্য চার্জ প্রযোজ্য হতে পারে।

  1. ৯৯৯: দেশের জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর। যেকোনো পরিস্থিতিতে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও অ্যাম্বুলেন্স সেবা পেতে এই নম্বরে ফোন করুন।
  2. ১০৯: নারী ও শিশু নির্যাতন বা বাল্যবিবাহের ঘটনা জানাতে এই নম্বরে ফোন করুন।
  3. ১০৯৮: শিশুদের জরুরি সহায়তার জন্য এই নম্বরে ফোন করুন।
  4. ১০৬: দুর্নীতি দমন কমিশনের কল সেন্টার।
  5. ১৬৪৩০: সরকারি আইনি সহায়তা কল সেন্টার।
  6. ১৬১২৩: কৃষি বিষয়ক পরামর্শের জন্য কল সেন্টার।
  7. ৩৩৩: জাতীয় তথ্যবাতায়ন কল সেন্টার।
  8. ১৬২৬৩: বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য কল সেন্টার।
  9. ১৬১০৮: মানবাধিকার সহায়ক কল সেন্টার।
  10. ১৬২৫৬: আপনার ইউনিয়নের সকল তথ্য জানতে কল করুন ইউনিয়ন সহায়তামুলক কল সেন্টারে।
  11. ১৩১: বাংলাদেশ রেলওয়ে কল সেন্টার।
  12. ১০৫: জাতীয় পরিচয়পত্র তথ্য কল সেন্টার।
  13. ১০০: বিটিআরসি কল সেন্টার।
  14. ১৬৪২০: বিটিসিএল কল সেন্টার।

অসুস্থ্য হলে কোথায় কল করবেন?

অসুস্থ্য হলে আপনি নম্বরগুলিতে কল করতে পারেন জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর (৯৯৯)। এটি জরুরি পরিস্থিতিতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নম্বর।আপনি যদি গুরুতর অসুস্থ হন এবং দ্রুত চিকিৎসা সহায়তার প্রয়োজন হয়, তাহলে এই নম্বরে কল করুন। এছাড়াও  স্বাস্থ্য বাতায়ন (১৬২৬৩) এটি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের একটি হেল্পলাইন। আপনি যদি সাধারণ স্বাস্থ্য সমস্যা সম্পর্কে পরামর্শ চান, তাহলে এই নম্বরে কল করতে পারেন। এই নম্বরে কল করে আপনি ডাক্তারের সাথে কথা বলতে পারবেন, বিভিন্ন রোগ সম্পর্কে তথ্য পেতে পারবেন এবং স্বাস্থ্যসেবা সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর পেতে পারবেন। আপনি যদি আপনার এলাকার কোনো হাসপাতাল বা ক্লিনিকের নম্বর জানেন, তাহলে সরাসরি সেখানে কল করতে পারেন। হাসপাতাল বা ক্লিনিকে কল করে আপনি তাদের সেবা সম্পর্কে জানতে পারবেন এবং অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে পারবেন। আপনার যদি কোনো পরিবারের ডাক্তার থাকেন, তাহলে আপনি সরাসরি তাকে কল করতে পারেন। পরিবারের ডাক্তার আপনার চিকিৎসা ইতিহাস সম্পর্কে জানেন এবং আপনাকে উপযুক্ত পরামর্শ দিতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *