সহকারী শিক্ষকদের নিয়োগপত্র সংক্রান্ত নির্দেশনা ২০২২ । যোগদান ও পদায়ন সময়সীমা জারি করা হয়েছে

নির্বাচিত প্রার্থীগণের অনুকূলে নিয়োগপত্র জারির সময় সীমা আগামী ০৩ জানুয়ারি ২০২৩– সহকারী শিক্ষকদের নিয়োগপত্র সংক্রান্ত নির্দেশনা ২০২২

ডকুমেন্টস যাচাই সংক্রান্ত নির্দেশনা- প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের আবেদনপত্রের অনুলিপি/কপি সংর কাগজপত্রসহ ব্যক্তিগত নথি সৃজন করে পৃথকভাবে সংরক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের পরিচিতি প্রতিপাদন ও সংশ্লিষ্ট সকল দেহরসহ স্বশরীরে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে উপস্থিত থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।

প্রার্থীর নমুনা স্বাক্ষরের সঙ্গে মূল আবেদনগরে প্রদত্ত স্বাক্ষরের গরমিল পরিলক্ষিত হলে তাঁর নিয়োগ স্থগিত রেখে প্রার্থী কর্তৃক প্রদত্ত পর পর তিনটি নমুনা স্বাক্ষর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার কর্তৃক সত্যায়ন করে সুস্পষ্ট মতামত সহকারে অধিদপ্তরে সিদ্ধান্তের জন্য প্রেরণ করতে হবে। নিয়োগ অদেশ জারির পূর্বে এ মর্মে নিশ্চিত হতে হবে যে, নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুসারে ২০ অক্টোবর ২০২০ তারিখে বাস সর্বনিম্ন ২১ বৎসর এবং ২৫ মার্চ ২০২০ তারিখে সর্বোচ্চ ৩০ বৎসর (মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও শারীরিক প্রতিবন্ধী আবেদনকারীর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ বয়সসী ২৫ মার্চ ২০২০ তারিখে ৩২ বৎসর)।

প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের নিয়োগ আদেশ জারির পূর্বে মূল আবেদনপত্রে উল্লিখিত সকল তথ্য ও সনদপত্র (শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতীয়তা ইত্যাদি) পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে যাচাইপূর্বক প্রার্থীদের নামে নিয়োগ আদেশ জারি করতে হবে।প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীগণের জেলা সিভিল সার্জন দত্তর কর্তৃক প্রদত্ত স্বাস্থ্যগত উপযুক্ততার প্রত্যয়ন ও ডোপটেস্ট রিপোর্ট পর্যালোচনাপূর্বক নিয়োগ আদেশ জারি করতে হবে।

নিয়োগপত্র ইস্যুর পূর্বে যাচাই কার্যক্রমে কোন লক বা অসঙ্গতি পরিলক্ষিত হলে, সিভিল সার্জন কর্তৃক প্রদত্ত প্রতারনার কিংবা স্বাস্থ্যগত উপযুক্ততার প্রত্যয়ন না থাকলে কিংবা নেতিবাচক ডোপটেস্ট রিপোর্ট পাওয়া গেলে সন্ধি প্রার্থীর নিয়োগপত্র ইস্যু স্থগিত রেখে অবিলম্বে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপুরে একটি প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে।

নিয়োগপত্র , আদেশ কিভাবে ও কত তারিখের মধ্যে জারি করতে হবে সে সংক্রান্ত নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে 

প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থী আগামী ৩১ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখের মধ্যে পরিচিতি প্রতিপাদন ও সকল ডকুমেন্ট যাচাইয়ের নিমিত্ত সংশ্লিষ্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে সকল মূল সনদসহ (সকল সনদের মূলকপি, জাতীয় পরিচয়পত্র ০৩ কপি পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম যথাযথভাবে পূরণকৃত, সিভিল সার্জন কর্তৃক প্রদত্ত স্বাস্থ্যগত উপযুক্ততার সনদ/প্রত্যয়পত্র এবং ডোপটেস্ট রিপোর্ট ও প্রযোজ্য ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কোটার সনদ স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে জাম প্রদান না করলে তার অনুকূলে নিয়োগ আদেশ জারি করা যাবে না।

Caption: Instruction about Employment of Asstant Teacher in Primary School

সহকারী শিক্ষক নিয়োগ আদেশে কি কি উল্লেখ থাকতে হবে? নিয়োগপত্র সংক্রান্ত নির্দেশনা

  1. নির্ধারিত নিয়োগ পত্রের নমুনা অনুযায়ী প্রার্থীর নিয়োগ আদেশ জারির পূর্বে প্রার্থীর নাম, মাতা, পিতা/স্বামীর নাম, স্থায়ী ঠিকানা বর্তমান ঠিকানা সংবলিত কলামগুলো মূল আবেদনপত্র অনুসারে সঠিকভাবে নিয়োগপত্রে লিপিবদ্ধ করতে হবে। নিয়োগপত্রে প্রার্থীদের মেধাক্রম অবশ্যই লিপিবদ্ধ করতে হবে।
  2. সহকারী শিক্ষকদের সরকার নির্ধারিত বেতন স্কেল নিয়োগ আদেশে উল্লেখ করতে হবে।
  3. নিয়োগ আদেশে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে তারিখসহ স্বাক্ষরের নীচে পূর্ণনাম, পদবী, ফোন ও ফ্যাক্স থাকে এবং মেইল করতে হবে।
  4. নির্বাচিতদের বর্তমান ও স্থায়ী উত্তর ঠিকানায় রেজিস্টার্ড ডাকযোগে নিয়োগপত্র প্রেরণ করতে হবে। একই সাথে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে হবে এবং জেলা তথ্য বাতায়নে প্রকাশের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
  5. নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির ৯ নং শর্ত মোতাবেক প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের মধ্য হতে মেধাক্রম অনুসারে সংযুক্ত অনুযায়ী প্রথমে রাজস্বখাতভুক্ত প্রার্থীদের নিয়োগপত্র প্রদান করতে হবে।
  6. রাজস্বখাতভুক্ত শূন্য পদে নিয়োগের পর অবশিষ্ট নির্বাচিত প্রার্থী জাতীয়করণকৃত সরকার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পিইডিপি-এ এর আওতায় প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণির জন্য সৃষ্ট পদে নিয়োগ প্রদান করতে হবে। অর্থাৎ ২টি আলাদা নিয়োগ পত্র ইস্যু করতে হবে।

যোগদান ও পদায়ন সতকার নির্দেশনা কেমন হবে?

নিয়োগে আদেশপ্রাপ্ত প্রার্থীগণকে ২২ জানুয়ারি ২০২৩ তারিখে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে যোগদান করতে হবে। নিয়োগকৃত শিক্ষকগণের নিকট হতে গৃহীত ০৩ (তিন) কপি পুলিশ ভেরিফিকেশন করে (যথাযথভাবে পুরণকৃত- সংশ্লিষ্ট দপ্তরে ০৮ জানুয়ারি ২০২৩ তারিখের মধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রেরণ করতে হবে।জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নবনিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকণতার পদায়নের ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। তবে, শিক্ষকের শুন্যপদ পূরণের ক্ষেত্রে নিম্নরূপভাবে অগ্রাধিকার নিয়ে পদায়ন করতে হবে। দুর্গম চরাঞ্চল/হাওরাঞ্চল/দীপাঞ্চল এলাকার বিদ্যালয়ের বিদ্যমান শূন্যপদসমূহ (এক্ষেত্রে পুরুষ শিক্ষকদের প্রাধান্য দিতে হবে)। শূন্যপদ পদ পূরণের ক্ষেত্রে নবজাতীয়করণকৃত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়-কে অগ্রাধিকার দিতে হবে। কোন বিদ্যালয়ে ৫০% অধিক পদ শূगानবষয়ে বিশেষ নজর দিতে হবে।যোগদানকৃত শিক্ষকগণকে ধরার প্রাপ্তি সাপেক্ষে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের ব্যবস্থাপনা সমূহ) দিনের ওরিয়েন্টেশন প্রদান করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *