ই পাসপোর্ট আটকে যাওয়ার ১০ টি কারন জানুন

পাসপোর্ট করতে দেওয়ার পর অনেক কারনে আপনার পাসপোর্ট এপ্রুভ না হয়ে তা আটকে যেতে পারে।

কিভাবে বুঝবেন আপনার পাসপোর্ট আটকে গেছে?

পাসপোর্ট আবেদনের পর যদি পাসপোর্টের অনলাইন অবস্থা যাচাই কালে নিম্নের যে কোন ১ টি ম্যাসেজ আসে তবে বুঝতে হবে আপনার পাসপোর্ট আপাতত Approve বা অনুমোদন হচ্ছে নাঃ

1. Pending Approval
2. Enrollment Process

অনেক গুলো কারনে আপনার Passport Approve না হয়ে অনুমোদন আটকে যেতে পারে। তন্মধ্যে ১০ টি কারন নিম্নে উল্লেখ করছিঃ

১. চোখের রেটিনা মিলে যাওয়া

মাঝে মাঝে আপনার চোখের রেটিনার ছবি অন্য কোন ব্যক্তির সাথে মিলে যেতে পারে। অর্থাৎ পাসপোর্ট করার প্রক্রিয়ায় আপনি যখন Passport Office এ চোখের রেটিনার ছবি দিচ্ছেন তা অন্য কোন ব্যক্তির সাথে মিলে যেতে পারে। এক্ষেত্রে আপনার E passport অনুমোদন প্রক্রিয়া আটকে থাকতে পারে। পাসপোর্ট অফিসে যোগাযোগ করে এর সমাধান করতে হবে।

২. আপনার Finger Print অন্য কোন ব্যক্তির সাথে মিলে যাওয়া। এটাও একই ধরনের কারন, E Passport অনুমোদন না হওয়ার। পাসপোর্ট অফিসে অতিসত্বর যোগাযোগ করলে আপনি এর সমাধান পাবেন।

৩. পুরাতন পাসপোর্ট এর জন্ম স্থানের সহিত NID Card এর জন্মস্থান ভিন্ন হওয়া।

আবেদন করার সময় বা ফরম পূরনের সময় সতর্কতার সহিত আবেদন করতে হবে। জন্মস্থান একই জায়গায় উল্লেখ করতে হবে।

৪. অন্য কারো সাথে নিজের নাম এবং পিতামাতার নাম মিলে যাওয়া। এরকমটি ক্ষেত্রবিশেষে হতে পারেই। তবে এর জন্য পরবর্তীতে Justification দিতে হবে।

৫. পুরাতন পাসপোর্ট থাকা সত্ত্বেও তা গোপন করে নতুন করে Finger Print দেয়া।

৬. NID Card এর সাথে পাসপোর্টে উল্লেখিত নিজ নামের মিল না থাকা। যেমনঃ রহিম এবং মো. রহিম। অথবা মো. রহিম ও মোহাম্মদ রহিম। শব্দ কমবেশি হওয়ার কারনেও অনুমোদন নাও হতে পারে।

৭. NID Card এর সাথে E Passport আবেদনের জন্ম তারিখ মিল না থাকা।

৮. ফরম পূরনের সময় NID Number এর জায়গায় জন্ম সনদের নম্বর উল্লেখ করা। বয়স ১৮ এর কম হলে জন্ম সনদের নম্বর দিতে হবে। আর আপনার বয়স ২০ এর বেশি হলে NID Number উল্লেখ করবেন। তবে ১৮ থেকে ২০ এর মধ্যে হলে দুটোই নিজ নিজ ঘরে উল্লেখ করতে পারেন।

৯. ফরম পূরনের সময় পূর্বের পাসপোর্ট এর ধরন MRP Passport ছিলো নাকি E passport ছিলো সেই বিষয় টি ভুল Selection করা।

১০. পুরাতন বই ১ টি গ্যাপ দিয়ে অন্যটি শো করে নতুন Finger Print দেয়া। অর্থাৎ আপনার একাধিক পুরাতন বই থাকলে সর্বশেষ টি উল্লেখ করতে হবে তা না হলে অনুমোদন আটকে যাবে।

উপরোক্ত ১০ টি কারনে আপনার E passport অনুমোদন না হয়ে আটকে যেতে পারে। সুতরাং সতর্কতার সহিত E Passport Application করতে হবে।

4 thoughts on “ই পাসপোর্ট আটকে যাওয়ার ১০ টি কারন জানুন

  • 26/05/2022 at 4:14 pm
    Permalink

    pending passport kivabe delivery pabo?

    Reply
    • 28/05/2022 at 1:34 am
      Permalink

      কার্যক্রম শেষ হলেও pending থাকবে না। ডেলিভারির জন্য মোবাইলে মেসেজ পাবেন।

      Reply
  • 28/10/2022 at 4:32 am
    Permalink

    Sir amar NID & Passporter modde 7 years different amar certificate ace ami ki passport tik korte parbo NID sathe mir reke?

    Reply
    • 28/10/2022 at 1:43 pm
      Permalink

      পারবেন। সংযুক্তি গুলো যুক্ত করে আবেদন করুন।

      Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *