প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অনলাইন প্রশিক্ষণ ২০২৩ । আগামী ১৫ জানুয়ারি ২০২৩-এর মুক্তপাঠ থেকে সম্পন্নের নির্দেশনা জারি

সরকার জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখা চালু করেছে যেটি চলতি মাসের মাঝামাঝির মধ্যেই শেষ করতে হবে – প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অনলাইন প্রশিক্ষণ ২০২৩

কোর্সটি করার উদ্দেশ্য কি? জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখা ২০২১-এর বিষয়ে সকল শিক্ষক, প্রশিক্ষক এবং কর্মকর্তাদের অবগত করা, জাতীয় শিক্ষাক্রম পরিমার্জন সম্পর্কে অবহিত করা এবং ৩) জাতীয় শিক্ষাক্রম-এর দর্শন, রূপকল্প, অভিলক্ষ্য এবং যোগ্যতাভিত্তিক শিক্ষাক্রম সম্পর্কে অবহিত করা।

 ২০২৩ শিক্ষাবর্ষ থেকে সারাদেশের মাধ্যমিক পর্যায়ের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৬ ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণিতে জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখা ২০২১-এর আলোকে প্রণীত শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক অনুযায়ী শিখন কার্যক্রম চালু হতে যাচ্ছে। শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নে নিমিত্ত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের (৬ষ্ঠ-৮ম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদান করা হয় এমন) সকল শিক্ষক এর জন্য মুক্তপাঠ ই-লার্নিং প্লাটফর্মে জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখা ২০২১ অনলাইন প্রশিক্ষণ’ চালু করা হয়েছে।

সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের (৬ষ্ঠ-৮ম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদান করা হয়) শিক্ষকগণকে আগামী ১৫ জানুয়ারি ২০২৩-এর মধ্যে মুক্তপাঠ ই-লার্নিং প্লাট ফর্মে যুক্ত হয়ে শিক্ষকগণের ব্যক্তিগত PIN আইডি ব্যবহার করে অনলাইন প্রশিক্ষণটি সম্পন্ন করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়েছে।

শিক্ষকদের জন্য ট্রেনিং গুলো অনলাইন ভিত্তিক হচ্ছে / নতুন পাঠক্রম পদ্ধতি জানতে অবশ্যই কোর্সটি করতে হবে

সরকার কর্তৃক অনুমোদনকৃত ও জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) প্রণীত নতুন শিক্ষাক্রম সম্পর্কে ধারণা প্রদানের উদ্দেশ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর-এর গৃহীত সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে সকল শিক্ষক, প্রশিক্ষক ও কর্মকর্তাগণের জন্য অনলাইন কোর্সটি মুক্তপাঠে উন্মুক্ত করা হয়েছে।

জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখা ২০২১ অনলাইন প্রশিক্ষণ

জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখা ২০২১ । কি কি শেখায় হয় এই কোর্সে

বিনামূল্যে কোর্সটি করতে এখনই ক্লিক করুন

কোর্সটি কি করতেই হবে?

হ্যাঁ। ২০২৩ শিক্ষাবর্ষ থেকে সারাদেশের মাধ্যমিক পর্যায়ের বিদ্যালয়, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণিতে জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখা ২০২১ এর আলোকে প্রণীত শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তকের অনুযায়ী শিখন কার্যক্রম চালু হতে যাচ্ছে। প্রস্তাবিত শিক্ষাক্রম মাঠ পর্যায়ে বাস্তবায়নের পূর্বেই সকল শিক্ষক ও শিক্ষা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণের প্রশিক্ষণ নিশ্চিত করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নে মূল ভূমিকা পালন করবেন শিক্ষক সমাজ। শিক্ষাক্রম বিস্তরণে শিক্ষকদের ধারাবাহিকভাবে বিভিন্ন অফলাইন ও অনলাইন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রস্তুত করা হবে। এছাড়াও বিভিন্ন বিষয়ভিত্তিক ও ইস্যুভিত্তিক অনলাইন কোর্স পর্যায়ক্রমে শুরু করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *