স্কুলের অনলাইন টিসি ২০২৩ । দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের ছাড়পত্র ও ভর্তি বাতিল সময়সীমা বৃদ্ধি

২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে দ্বাদশ শ্রেণিতে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের eTC (অনলাইন টিসি), BTC (বোর্ড পরিবর্তনের মাধ্যমে ছাড়পত্র) এবং ভর্তি বাতিল কার্যক্রমের সময় বৃদ্ধি করা হয়েছে – স্কুলের অনলাইন টিসি ২০২৩

দ্বাদশ শ্রেণি হল বাংলাদেশের স্কুল শিক্ষার্থীদের জন্য একটি শ্রেণী যা সাধারণত আধুনিক শিক্ষামূলক বিষয়গুলি শিখানো হয়। এই শ্রেণীতে পাঠ্যপুস্তকে অধিকাংশই ইংরেজিতে লেখা থাকে এবং প্রথম ভাষা হিসাবে ইংরেজি ব্যবহৃত হয়। দ্বাদশ শ্রেণিতে বিষয়গুলি প্রায়শই ইংরেজিতে শিখানো হয়, যেমন গণিত, বিজ্ঞান, পরিবেশ বিজ্ঞান, সামাজিক বিজ্ঞান, ইংরেজি সাহিত্য, বাংলা সাহিত্য, ইংরেজি ভাষা ও বাংলা ভাষা। এছাড়াও, কিছু বিষয় পাঠ্যপুস্তকে সম্ভবত দৈনন্দিন জীবনে উপকার হতে পারে, যেমন কম্পিউটার বিজ্ঞান, ফিজিক্স, রচনাশিক্ষা এবং বাংলাদেশের ইতিহাস ও সংস্কৃতি। দ্বাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থীদের শিক্ষার্থতা এবং বিষয় জ্ঞান উন্নয়ন করা হয়।

শিক্ষার্থী, অভিভাবক এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণের আবেদনের প্রেক্ষিতে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে দ্বাদশ শ্রেণিতে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের eTC (অনলাইন টিসি), BTC (বোর্ড পরিবর্তনের মাধ্যমে ছাড়পত্র) এবং ভর্তি বাতিল কার্যক্রম আগামী ০৭/০৪/২০২৩ তারিখ হতে ৩০/০৪/২০২৩ তারিখ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে। অনলাইন ট্রান্সফার সার্টিফিকেট ফর্ম লিংক: https://erp.dhakaeducationboard.gov.bd/index.php/tc

স্কুল ট্রান্সফার সার্টিফিকেট হল একটি দলিল যা একটি শিক্ষার্থী বা তার অভিভাবক বা পূর্ববর্তী প্রতিষ্ঠান থেকে অন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্থানান্তর করতে ব্যবহৃত হয়। যেমন, একজন শিক্ষার্থী যদি একটি স্কুল থেকে অন্য একটি স্কুলে স্থানান্তর করতে চায় তবে সে তার পূর্ববর্তী স্কুল থেকে ট্রান্সফার সার্টিফিকেট নিয়ে নতুন স্কুলে যেতে হবে। একটি স্কুল ট্রান্সফার সার্টিফিকেট একটি আইডিয়া দেয় যে শিক্ষার্থী একটি নির্দিষ্ট স্কুল থেকে অন্য স্কুলে স্থানান্তর করেছেন এবং সেই প্রতিষ্ঠানে তার পূর্ববর্তী শিক্ষা সংস্কারের তথ্য প্রদান করে।

একটি ভাল স্কুল ট্রান্সফার সার্টিফিকেট সাধারণত বিস্তারিত থাকে এমন বিষয়গুলি যেমন শিক্ষার্থীর নাম, পূর্ববর্তী স্কুলের নাম, ঠিকানা, স্থান উল্লেখ থাকে।

 

টিসি প্রাপ্তির জন্য এখন অনলাইনেই আবেদন করা যায় এবং ফি মোবাইল ব্যাংকিং এ পরিশোধ করা যায় / Transfer certificate from

দ্বাদশ শ্রেণীর অনলাইন টিসি বা বিটিসির জন্য ৭০০ টাকা এবং ভর্তি বাতিলের জন্য ৬০০ টাকা ফি পরিশোধ করতে হবে।

Caption: Source of information

Online Transfer certificate from । অনলাইন টিসি প্রাপ্তির নিয়মাবলী 

  1. শিক্ষার্থী কতৃক টিসি(TC)ফরম সঠিক ভাবে পূরণ করে “Submit your application” বাটনে ক্লিক করবে এবং
  2. সোনালী সেবার স্লিপ প্রিন্ট নিবে।
  3. টিসির আবেদনটি সাবমিট করার পর প্রথমে নিজ প্রতিষ্ঠান দেখতে পাবে এবং অনুমোদন করবে।
  4. এরপর ভর্তিচ্ছু প্রতিষ্ঠান আবেদনটি দেখতে পাবে এবং অনুমোদন করলে শিক্ষার্থী বোর্ডের ফি জমা দেবার জন্য একটি SMS পাবে।
  5. অতঃপর বোর্ড কতৃক আবেদন চূড়ান্ত অনুমোদনের পর শিক্ষার্থী আর একটি SMS পাবে।
  6. তখন সে বোর্ডের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে e-TC থেকে টিসির আদেশ প্রিন্ট নিয়ে নতুন প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হবে।
  7. আবেদনটি কোথায় কি অবস্থায় আছে ও সোনালী সেবার স্লিপ প্রিন্ট করতে Transfer certificate status বাটন ক্লিক করে রোল, রেজিস্ট্রেশন এবং সিকিউরিটি কোড দিয়ে লগইন করলে দেখা যাবে।

কি কি কারণে টিসি পাওয়া যায়?

পিতা/মাতার বদলি অথবা বাসস্থান পরিবর্তন অথবা যাতায়াত সমস্যা অথবা  আর্থিক অস্বচ্ছলতার কারণে ট্রান্সফার সার্টিফিকেট বা টিসি পাওয়া যায়। এ সব ক্ষেত্রে চাইলে ভর্তি বার্তিলও করা যায়। মোট কথা অভিভাবকের নিকট স্থানান্তর হতে হলে ছাত্র নতুন স্কুলে ভর্তি হতে পারেন। স্কুলে পড়াশুনার মানদণ্ড খারাপ হলে বা শিক্ষকদের ব্যবহার অপমানজনক হলে ছাত্র নতুন স্কুলে স্থানান্তর করতে পারেন। ছাত্র অন্য স্কুলে আপনার পছন্দের বিষয়ে অধিক পড়াশোনা করতে চান তাই নতুন স্কুলে স্থানান্তর করতে পারেন। কোন নির্দিষ্ট কারণে ছাত্র আপনার বর্তমান স্কুলে সঙ্কটে পরেছেন তাই নতুন স্কুলে স্থানান্তর করতে হতে পারেন।
এছাড়াও অন্যান্য কারণও হতে পারে, যেমন প্রতিষ্ঠানের বাণিজ্যিক কারণে স্কুলের বন্ধ হয়ে যাওয়া, ছাত্র পরীক্ষার ফলাফলে অনিশ্চয়তা থাকা ইত্যাদি।

দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের বিষয়/বোর্ড পরিবর্তন ও টিসি ফি ২০২৩ । ছাড়পত্র (বিটিসি), বিষয়/গ্রুপ/শিফট/ভার্সন/ছবি পরিবর্তন এবং ভর্তি বাতিল কার্যক্রম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *