MRT Pass Registration Form । ঢাকা মেট্রোরেল পাশ সংগ্রহ বাবদ ৫০০ টাকা ব্যয় হবে

মেট্রোরেল ভ্রমণ কার্ডের জন্য অনলাইনে আবেদন করা যাবে যাবে-অনলাইন হতে শুধুমাত্র ফর্ম সংগ্রহ করা যাবে – MRT Pass Registration Form

মেট্রোলে কি? – বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় নির্মাণাধীন শহরভিত্তিক রেল ব্যবস্থা হচ্ছে ঢাকা মেট্রো যা আনুষ্ঠানিকভাবে ম্যাস র‍্যাপিড ট্রানজিট বা সংক্ষেপে এমআরটি নামে পরিচিত। ২০১৩ সালে অতি জনবহুল ঢাকা মহানগরীর ক্রমবর্ধমান যানবাহন সমস্যা ও পথের দুঃসহ যানজট কমিয়ে আনার লক্ষ্যে কৌশলগত পরিবহন পরিকল্পনা প্রণয়ন করা হয় যার অধীনে প্রথমবারের মত ঢাকায় মেট্রো রেল স্থাপনের পরিকল্পনা করা হয়। মেট্রোরেলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড।

অদ্য ২৯ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখ হতে উত্তরা উত্তর এবং আগারগাঁও মেট্রোরেল স্টেশনের টিকেট কাউন্টার হতে বিকাল ০৩.০০ ঘটিকা থেকে রাত ০৯.০০ ঘটিকা পর্যন্ত MRT Pass ক্রয় করা যাবে। MRT Pass ক্রয়ের জন্য ডিএমটিসিএল- এর ফেইসবুক পেইজ অথবা http://www.dmtcl.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রদত্ত রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণ করে কাউন্টারে জমা দিতে হবে এবং ৫০০/- টাকা (কার্ডের মূল্য ২০০/- টাকা এবং ব্যবহারযোগ্য টাকার পরিমান ৩০০/-টাকা) কাউন্টারে পরিশোধ করতে হবে।

মেট্রোরেল ট্র্যাভেল কার্ডের দাম কত? ১০ বছর মেয়াদি স্থায়ী কার্ড কিনতে হবে ২০০ টাকা দিয়ে। এই কার্ড দিয়ে যাতায়াতের জন্য প্রয়োজনমতো টাকা রিচার্জ করা যাবে। স্থায়ী কার্ড পেতে নিবন্ধন করতে হবে। ডিএমটিসিএলের ওয়েবসাইটে নিবন্ধনের লিংক দেওয়া হবে। এ দিন থেকে নিবন্ধন করা যাবে। নিবন্ধন করতে নিজের নাম, মাতা–পিতার নাম, জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বা পাসপোর্ট নম্বর, মুঠোফোন নম্বর, ই-মেইল আইডি লাগবে। Metrorail Fair List । মেট্রোরেলের ভাড়ার তালিকা ২০২২

কার্ড বাবদ ২০০ টাকা এবং ব্যালেন্স ৩০০ টাকা / Dhaka Metro Rail Card Collection Fee and Balance

ম্যানুয়ালি ফর্ম পূরণ করে কাউন্টারে জমা দিলেই কার্ড পাওয়া যাবে। প্রতিবার রিচার্জের মাধ্যমে ভ্রমণ করা যাবে।

MRT Pass Registration Form PDF Download Click Here

মেট্রোরেল কার্ড সংগ্রহের নিয়ম ২০২২ । যেভাবে আপনি ঢাকা মেট্রো রেল কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন

  1. উত্তরা উত্তর এবং আগারগাঁও মেট্রোরেল স্টেশনের টিকেট কাউন্টার হতে বিকাল ০৩.০০ ঘটিকা থেকে রাত ০৯.০০ ঘটিকা পর্যন্ত MRT Pass ক্রয় করা যাবে।
  2. MRT Pass ক্রয়ের জন্য ডিএমটিসিএল- এর ফেইসবুক পেইজ অথবা http://www.dmtcl.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রদত্ত রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণ করে কাউন্টারে জমা দিতে হবে। আপনি চাইলে এখান থেকেও সংগ্রহ করতে পারবেন।
  3. কার্ডমূল্য সর্বমোট ৫০০/- টাকা (কার্ডের মূল্য ২০০/- টাকা।
  4. যাতায়াতে ব্যবহারযোগ্য টাকার পরিমান ৩০০/-টাকা) কাউন্টারে পরিশোধ করতে হবে।
  5. ফর্মে তথ্য দিয়ে টাকা পেমেন্ট করলেই কার্ড পাওয়া যাবে।

একবার গেলেও কি কার্ড লাগবে?

না। এক যাত্রার (সিঙ্গেল জার্নি) কার্ডের জন্য নিবন্ধনের প্রয়োজন হবে না। স্টেশন থেকে এই  কার্ড কিনে যাত্রা করা যাবে। ট্রেন থেকে নামার সময় কার্ড রেখে দেওয়া হবে। স্টেশনের টিকিট অফিস মেশিন (টিওএম) থেকে বিক্রয়কর্মীর সহায়তায় কার্ড কেনা যাবে। যারা একাধিকবার বা বার বার ভ্রমণ করবেন তারাই কার্ড সংগ্রহ করবেন।

Metrorail Fair List । মেট্রোরেলের ভাড়ার তালিকা ২০২২

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *